যানবাহনে ডিজিটাল নম্বরপ্লেট কি কোনো কাজেই লাগছে না?

42
Social Share

সড়কে শৃঙ্খলা বজায় রাখা, চুরি হওয়া গাড়ি ট্র্যাকিংয়ের মাধ্যমে উদ্ধার ও শনাক্তের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ২০১২ সালে যানবাহনের জন্য ডিজিটাল নম্বরপ্লেট বাধ্যতামূলক করা হয়েছিল। কিন্তু পুলিশ বলছে, চুরি হওয়া গাড়ি উদ্ধার তো দূরের কথা, দুর্ঘটনা কবলিত গাড়ির তথ্যও পাওয়া যায় না ডিজিটাল নম্বরপ্লেট থেকে। ফলে প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে ডিজিটাল নম্বরপ্লেটের সেবা।

মোটরসাইকেল চুরির ভুক্তভোগী সুমন মিয়া বলছেন, ডিজিটাল নম্বরপ্লেট থাকা সত্ত্বেও তার মোটর সাইকেলটি উদ্ধার করে দিতে পারেনি কেউ। ‘ডিজিটাল নম্বরপ্লেটের কার্যকারিতাই বুঝতে পারলাম না’, বলে হতাশা প্রকাশ করেন তিনি।

এখনও পর্যন্ত ৩০ লাখ গাড়িতে ডিজিটাল নম্বরপ্লেট লাগিয়েছে বিআরটিএ। গাড়িভেদে ২ থেকে ৫ হাজার টাকা ফিও নিয়েছে তারা। বেশি টাকা দিয়ে এই নম্বরপ্লেট লাগানো হলেও সড়কে শৃঙ্খলা ও চুরি হওয়া গাড়ি উদ্ধারে তারা পুরাতন পদ্ধতিই ব্যবহার করছে বলে জানিয়েছেন ডিএমপির অতিরিক্ত উপ-কমিশনার ইফতেখায়রুল ইসলাম।

ডিএমপির ট্রাফিক সার্জেট সাদ্দাম হোসাইন জানান, কোনো দুর্ঘটনা ঘটলে যেসব প্রযুক্তিগত তথ্য ডিজিটাল নম্বরপ্লেট থেকে পাওয়া যেতে পারে, তা তারা পাচ্ছেন না।

বিআরটিএ’র পরিচালক (ইঞ্জিনিয়ার) শিতাংশু সরকার বিশ্বাস ডিজিটাল নম্বরপ্লেটের সীমাবদ্ধতার কথা স্বীকার করেছেন। তিনি বলছেন, ডিজিটাল নম্বরপ্লেট সার্বক্ষণিক ট্র্যাকিংয়ের সুযোগ নেই। কেবল রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি আইডেনটিফিকেশন স্টেশনের কাছ দিয়ে গেলেই এটি শনাক্ত করা সম্ভব। তবে বিআরটিএর গাড়ি শনাক্তকরণের জন্য মোট ১২টি স্টেশনের সবগুলোই ঢাকায়। তবে আগামী বছর আরও বাড়ানো হবে বলে জানিয়েছে বিআরিটিএ।