মোদির সফরকালে সই হবে তিন সমঝোতা স্মারক

53
Social Share

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমন্ত্রণে আগামী ২৬-২৭ মার্চ বাংলাদেশ সফর করবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এ সময় উভয় প্রধানমন্ত্রী একই সঙ্গে নিজ নিজ দেশের পক্ষে বাংলাদেশ-ভারত বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে পৃথক দুটি স্মারক ডাকটিকিট উন্মোচন করবেন। এছাড়া দুই দেশের মধ্যে তিনটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হবে।

গতকাল সোমবার ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন এ তথ্য জানান। তিনি জানান, নরেন্দ্র মোদি মূলত মুজিববর্ষ উদ্যাপন, বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী এবং বাংলাদেশ-ভারত বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের যৌথ উদ্যাপন উপলক্ষ্যে রাষ্ট্রীয়ভাবে এই সফর করছেন।

এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, সফরের প্রথম দিন (২৬ মার্চ) নরেন্দ্র মোদি সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে মহান মুক্তিযুদ্ধে শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করবেন। বিকালে জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে সম্মানিত অতিথি হিসেবে বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি বক্তব্য রাখবেন। সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তিনি ‘বঙ্গবন্ধু-বাপু’ ডিজিটাল প্রদর্শনী পরিদর্শন করবেন।

২৭ মার্চ হাসিনা-মোদি বৈঠক

তিনি বলেন, সফরের দ্বিতীয় দিন (২৭ মার্চ) সকালে নরেন্দ্র মোদি গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধ পরিদর্শন করে শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন। এদিন তিনি সাতক্ষীরা ও গোপালগঞ্জে দুটি মন্দির পরিদর্শন, প্রার্থনা ও স্থানীয় জনগণের সঙ্গে সংক্ষিপ্ত পরিসরে মতবিনিময় করবেন। বিকালে দুই প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে একান্ত বৈঠক ছাড়াও প্রতিনিধি পর্যায়ে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। বৈঠকে দুই দেশের স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয় আলোচিত হবে। দুর্যোগ প্রশমনসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে তিনটি সমঝোতা স্মারকে সই হবে।

মোদির সফরকালে সই হবে তিন সমঝোতা স্মারক

২০১৯ সালে জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনের ফাঁকে বৈঠকে শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদি।

বৈঠকে দুই প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে কিছু সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর এবং কয়েকটি প্রকল্প উদ্বোধনের সম্ভাবনা রয়েছে। উভয় প্রধানমন্ত্রী একই সঙ্গে নিজ নিজ দেশের পক্ষে বাংলাদেশ-ভারত বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে পৃথক দুটি স্মারক ডাকটিকিটও উন্মোচন করবেন। এছাড়া ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে তার কার্যালয়ে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ১৭ থেকে ২৬ মার্চ পর্যন্ত ১০ দিনে নরেন্দ্র মোদিসহ দক্ষিণ এশিয়ার পাঁচটি দেশের রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধান বাংলাদেশ সফর করবেন। প্যারেড গ্রাউন্ডের আয়োজনে সম্মানিত অতিথি থাকবেন ১৭ মার্চ মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম মোহামেদ সলিহ, ১৯ মার্চ শ্রীলংকার প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপক্ষে, ২২ মার্চ নেপালের প্রেসিডেন্ট বিদ্যা দেবী ভান্ডারী, ২৪ মার্চ ভুটানের প্রধানমন্ত্রী ডা. লোটে শেরিং এবং ২৬ মার্চ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি যোগ দেবেন।

এছাড়া বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্র বা সরকারপ্রধানদের বক্তব্য ও ভিডিও বার্তা ছাড়াও বন্ধুরাষ্ট্রসমূহের সাংস্কৃতিক দলের সশরীরে এবং ধারণকৃত পরিবেশনা থাকবে। প্রত্যেক রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করবেন। মালদ্বীপের সঙ্গে চারটি এবং শ্রীলঙ্কার সঙ্গে আটটি সমঝোতা স্মারক সই হবে

সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেন, মন্ত্রণালয়ের সচিব (পূর্ব) মাশফি বিনতে শামস এবং চিফ অব প্রটোকল আমানুল হক বক্তব্য রাখেন।