মোদির আবেগী চিঠির পাল্টা ধন্যবাদ ধোনির

মহেন্দ্র সিং ধোনি ও নরেন্দ্র মোদি।
Social Share

গেল শনিবার সন্ধ্যায় সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর ঘোষনা করেন ভারতের সাবেক অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি। অবসরের পর এখনো চলছে দু’টি বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ককে নিয়ে বন্দনা। এবার সেই দলে নাম লেখালেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।
ধোনি’কে আবেগে ভরা দু’পাতার চিঠি লিখেছেন প্রধানমন্ত্রী মোদি। ধোনির উদ্দেশে মোদি লিখেছেন, ‘গত ১৫ অগস্ট আপনার স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে কাউকে কিছু বুঝতে না দিয়ে যে স্বল্প দৈর্ঘ্যের ভিডিও প্রকাশ করে অবসরের কথা জানালেন, তা এই মুহূর্তে গোটা দেশের কাছে আলোচনার বিষয়। ১৩০ কোটি ভারতীয় যা দেখে যেমন হতাশ, তেমনই কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে, গত দেড় দশকে ভারতীয় ক্রিকেটে আপনার অবদানের জন্য। ভারতীয় ক্রিকেটের অন্যতম সফল অধিনায়ক আপনি। বিশ্ব ক্রিকেটে ভারতকে শিখরে নিয়ে গিয়েছেন। ক্রিকেট ইতিহাসে আপনি থেকে যাবেন বিখ্যাত ব্যাটসম্যান, অধিনায়ক ও উইকেটকিপার হিসেবে।’
২০০৭ সালের টি-২০ বিশ্বকাপ জয়ের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী মোদি লিখেছেন, ‘মাঠে আপনার স্মরণীয় অনেক মুহূর্ত দেশের একটি বিশেষ প্রজন্মকে প্রতিকূল পরিস্থিতিতে শান্ত মাথায় লড়াই করার শিক্ষা দিয়েছে। তারা দেখেছে, কঠিন মুহূর্তে তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে দিয়ে জয় ছিনিয়ে আনার সাহসী দৃশ্য। যার সব চেয়ে বড় উদাহরণ ২০০৭ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ফাইনাল। ধোনি নামটা কেবল পরিসংখ্যান বা ম্যাচ জেতানোর দক্ষতার বিচারে দেখা হলে অন্যায় হবে। আপনি একজন কিংবদন্তি।’
ছোট শহর থেকে ধোনির উত্থান। সেই প্রসঙ্গ টেনে এনে ধোনি লিখেছেন, ‘এক ছোট শহর থেকে জাতীয় স্তরে উত্থান আপনার নামের সাথে-সাথে দেশকেও গৌরবান্বিত করেছে। তার পর থেকেই আপনার উত্থান এবং আপনার ক্রিয়াকলাপ দেশের কোটি কোটি যুবকের কাছে প্রেরণা হয়ে দাঁড়ায়। যারা আপনার মতো কোনও অভিজাত স্কুল-কলেজে পড়েনি, পারিবারিক আভিজাত্যও নেই, কিন্তু প্রতিভা রয়েছে, যার মাধ্যমে তারা নিজেদের সর্বোচ্চ স্তরে নিয়ে যেতে পারে। নতুন ভারতীয় সত্বার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ উদাহরণ আপনি, যেখানে পারিবারিক পরিচিতি নয়, নিজেদের পরিচয়েই নিজেদের অভিষ্টকে গড়ে নিতে পারে তরুণ সমাজ।’
অবসর নেয়ায় পরিবারের সাথে ধোনি ভালো সময় কাটাতে পারবেন বলে জানান প্রধানমন্ত্রী মোদি। তিনি লিখেছেন, ‘আশা করি, সাক্ষী ও জিভা এ বার আপনার সাথে বেশি সময় কাটাতে পারবে। তাদের ত্যাগ বা সহায়তা না থাকলে অনেক কিছুই সম্ভব হতো না। আপনার থেকে যুবসমাজ জানতে পারবে পরিবার ও পেশার মধ্যে কীভাবে ভারসাম্য রেখে এগোতে হয়। আমার মনে পড়ছে, একটা ম্যাচে ভারতের জয়ের পরে সবাই যখন আনন্দোৎসবে ব্যস্ত, আপনি তখন আপনার ফুটফুটে মেয়ের সাথে খেলায় ব্যস্ত হয়ে পড়েছিলেন।’
প্রধানমন্ত্রী মোদির দু’পাতার চিঠিটি নিজের টুইটারে তুলে ধরেন ধোনি। প্রধানমন্ত্রী মোদিকে ধন্যবাদ জানিয়ে ধোনি টুইট করে লিখেন, ‘একজন শিল্পী, সেনা বা ক্রীড়াবিদ স্বীকৃতি পেতে মুখিয়ে থাকেন। তাঁদের কঠোর পরিশ্রম বা ত্যাগ স্বীকৃতির জন্যই। তাদের আত্মত্যাগ প্রত্যেকের নজরে আসছে এবং তার মূল্যায়ন করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী মোদিকে তাঁর মূল্যায়ন ও শুভেচ্ছার জন্য ধন্যবাদ। সেই স্বীকৃতি ও শুভেচ্ছা প্রদানের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ।’