মেয়েরা চমকে দিল আঁখি আলমগীরকে

8
Social Share

বিনোদন ডেস্ক: কণ্ঠশিল্পী আঁখি আলমগীর। স্বনামধন্য অভিনেতা আলমগীর ও গীতিকবি খোশনূরের কন্যা তিনি। ‘ভাত দে’ সিনেমায় অভিনয় করে শিশুশিল্পী হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জয় করলেও নিজেকে তিনি গায়িকা হিসেবেই প্রতিষ্ঠিত করেছেন। ৭ জানুয়ারি আঁখি আলমগীরের জন্মদিন। বিশেষ এই দিনটিতে ভালোবাসায় সিক্ত হচ্ছেন আঁখি আলমগীর।

তবে করোনার বছরে নানা চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা আঁখি আলমগীরকে জন্মদিনে বিশেষভাবে চমকে দিল তাঁর মেয়েরা। এ তারকার বড় মেয়ের নাম স্নেহা। আর ছোট মেয়ের নাম আরিয়া। তারা মায়ের জন্মদিনে সারপ্রাইজ দিয়ে মুগ্ধ করে দিয়েছে।

কিছু ছবি ও ভিডিও ফেসবুকে আপলোড করে সে খবরই জানিয়েছেন জনপ্রিয় এই সংগীতশিল্পী। ফেসবুকে আঁখি লিখেছেন, ‘আমার মেয়েরা জন্মদিনের পার্টি আয়োজন করে চমকে দিয়েছে।’

চলতি মাসে ঢাকার বাইরে দু-তিনটি স্টেজ শো রয়েছে আঁখি আলমগীরের। এরই মধ্যে ইমন সাহার সুর ও সংগীতে দুটি সিনেমায় গানও গেয়েছেন তিনি।

আঁখি ১৯৮৪ সালে আমজাদ হোসেন পরিচালিত ভাত দে চলচ্চিত্রে কিশোরী জরি চরিত্রে অভিনয় করেন। এতে অভিনয়ের জন্য শ্রেষ্ঠ শিশুশিল্পী বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন। আঁখি প্রথম চলচ্চিত্রে প্লেব্যাক করেন বিদ্রোহী বধূ (১৯৯৪) চলচ্চিত্রে। তখন তিনি দ্বাদশ শ্রেণিতে পড়াশোনা করতেন। ১৯৯৬ সালে আঁখি আলাউদ্দিন আলীর সুরে সত্যের মৃত্যু নেই চলচ্চিত্রের গানে কণ্ঠ দেন।

১৯৯৭ সালে তার প্রথম গানের অ্যালবাম প্রথম কলি প্রকাশিত হয়। পরের বছর তার সাড়া জাগানো বিষের কাঁটা অ্যালবামটিও প্রকাশিত হয়। এই অ্যালবামের ‘বন্ধু আমার রসিয়া’ ও ‘পিরীতি বিষের কাঁটা’ গান দুটি শ্রোতাদের কাছে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে।