মুখোমুখি ইরান-মার্কিন যুদ্ধজাহাজ, যুক্তরাষ্ট্রের হুঁশিয়ারি সংকেত

39
Social Share

সম্প্রতি পারস্য উপসাগরীয় জলসীমায় ইরান-মার্কিন যুদ্ধজাহাজ মুখোমুখি অবস্থান নেওয়াই টানটান উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। খুবই কাছ থেকে মার্কিন জাহাজের অগ্রভাগ ঘিরে রেখেছিল ইরানি জাহাজ।

এক ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, কোস্টগার্ডের দুটি জাহাজকে ২ এপ্রিল তিন ঘণ্টা ধরে নাজেহাল করেছে ইরানি জাহাজ। বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর (আইআরজিসি) একটি জাহাজ যুক্তরাষ্ট্রের কোস্টগার্ডের নৌযানকে সামনে থেকে বাধা দিয়েছে। এতে সেটি হঠাৎ বন্ধ হয়ে ইঞ্জিন থেকে ধোঁয়া বের হচ্ছিল। যুক্তরাষ্ট্রের কোস্টগার্ডের আরেকটি জাহাজ র‌্যাংগেলের সঙ্গে বিপ্লবী গার্ড বাহিনী একই কাজ করে।

মার্কিন নৌবাহিনীর মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক পঞ্চম নৌবহরের মুখপাত্র রেবেকা রেবারিচ এসব তথ্য দিয়েছেন। রেবেকা বলেন, ‘রেডিওর মাধ্যমে মার্কিন নাবিকরা বেশ কয়েকবার হুঁশিয়ারি সংকেত দিয়েছেন। ইরানি হার্থ ৫৫ থেকে যখন সাড়া দেওয়া হয়, তখনও তারা ঝুঁকিপূর্ণ কৌশল অব্যাহত রেখেছিল। যুক্তরাষ্ট্র প্রায় তিন ঘণ্টা হুঁশিয়ারি সংকেত দিয়েছে এবং আত্মরক্ষামূলক অভিযান পরিচালনা করে। তখন ইরানি জাহাজ দূরে চলে যায় এবং দূরত্ব বজায় রাখে।’

আমেরিকান নৌবাহিনী জানায়, ২০২০ সালের ১৫ এপ্রিলের পর এটিই প্রথম ‘অনিরাপদ ও অপেশাদার’ ঘটনা।’ তবে এতে কোনো হতাহত কিংবা ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। ইরান তাৎক্ষণিকভাবে এ ঘটনা স্বীকারও করেনি।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সাল ও ২০১৯ সালের প্রায় পুরোটা সময় এরকম অঘটন বন্ধ রেখেছিল ইরান। ২০১৭ সালে ১৪টি, ২০১৬ সালে ৩৫টি এবং ২০১৫ সালে ২৩টি ঘটনা ছিল এ রকম।