মানব উন্নয়ন সূচকে বাংলাদেশের অগ্রগতি

6
Social Share

জাতিসংঘের মানব উন্নয়ন সূচকে দুই ধাপ অগ্রগতি হয়েছে বাংলাদেশের। এবার ১৮৯টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১৩৩তম। গত বছর এই অবস্থান ছিল ১৩৫ তম।

গত বছরের তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে মানব উন্নয়ন সূচক (এইচডিআই)  প্রতিবেদন-২০২০  প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচি (ইউএনডিপি)।

প্রতি বছর বিভিন্ন দেশের স্বাস্থ্য, শিক্ষা, আয় ও সম্পদের উত্স, বৈষম্য, লৈঙ্গিক সমতা, দারিদ্র্য, কর্মসংস্থান, নিরাপত্তা, বাণিজ্য ও আর্থিক প্রবাহ, যোগাযোগ, পরিবেশের ভারসাম্য ও জনমিতির তথ্য বিশ্লেষণ করে মানব উন্নয়ন সূচক তৈরি করে ইউএনডিপি। এসব মানদণ্ডে এবার বাংলাদেশের মানব উন্নয়ন সূচকে স্কোর দাঁড়িয়েছে শূন্য দশমিক ৬৩২; যা গত বছর ছিল শূন্য দশমিক ৬১৪। যে দেশ পূর্ণসংখ্যা ১-এর যত কাছাকাছি সে দেশ মানব উন্নয়ন সূচকে তত উন্নত ধরা হয়।

১৯৯০ সাল থেকে এ প্রতিবেদন প্রকাশ করে আসছে ইউএনডিপি।

প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, বাংলাদেশ মানব উন্নয়ন সূচকে ধারাবাহিক উন্নতি করে যাচ্ছে। গত কয়েক বছর ধরে দুই থেকে তিন ধাপ করে এগোচ্ছে বাংলাদেশ। ২০১৬ সালের প্রতিবেদনে ১৩৯ তম অবস্থানে ছিল বাংলাদেশ। গত বছর এক ধাপ এবং তার আগের বছর তিন ধাপ এগিয়ে আসে বাংলাদেশ।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে আছে ভারত, শ্রীলঙ্কা, মালদ্বীপ ও ভুটান। এ বছর শ্রীলঙ্কার অবস্থান এক ধাপ পিছিয়ে ৭২তম হয়েছে। মালদ্বীপ ১০৪তম থেকে ৯ ধাপ এগিয়ে ৯৫তম অবস্থানে উঠে এসেছে। ভারত দুই ধাপ পিছিয়ে ১৩১তম ও ভুটান পাঁচ ধাপ এগিয়ে ১২৯তম অবস্থানে উঠে এসেছে।

অন্যদিকে বাংলাদেশের পেছনে রয়েছে পাকিস্তান, নেপাল ও আফগানিস্তান। পাকিস্তান এক বছরের ব্যবধানে দুই ধাপ পিছিয়ে ১৫৪তম, নেপাল ৫ ধাপ এগিয়ে ১৪২তম এবং আফগানিস্তান এক ধাপ এগিয়ে ১৬৯তম অবস্থানে রয়েছে।

এবার বিশ্বে মানব উন্নয়ন সূচকে আগের বছরের মতো শীর্ষে অবস্থান আছে নরওয়ে। দ্বিতীয় ও তৃতীয় অবস্থানে আছে যথাক্রমে আয়ারল্যান্ড ও সুইজারল্যান্ড।

এরপর আছে যথাক্রমে হংকং, আইসল্যান্ড, জার্মানি, সুইডেন, অস্ট্রেলিয়া, নেদারল্যান্ড ও ডেনমার্ক।

আর সবার পেছনে আছে গায়ানা, লাইবেরিয়া, গিনি বিসাউ, কংগো ও নাইজার।