মহামারী সত্ত্বেও শেখ হাসিনার অধীনে পাঁচ শতাংশের বেশি প্রবৃদ্ধি

Social Share

করোনা মহামারির সত্ত্বেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধীনে এই বছর ৫ শতাংশেরও বেশি প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে বাংলাদেশ। সেই সঙ্গে ভারত তার পূর্ব অংশীদারদের জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ উন্নয়নের অংশীদার হিসাবে রয়ে গেছে। শনিবার বাংলাদেশে ভারপ্রাপ্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিশ্বদীপ দে এ মন্তব্য করেছেন।

ভারতের এ কূটনীতিক বলেছেন, বাংলাদেশ ধারাবাহিকভাবে ৭ শতাংশ হারে বৃদ্ধি পেয়েছে এবং মহামারী সত্ত্বেও গত অর্থবছরে ৫.২ প্রবৃদ্ধি আটকে রেখেছে। সামাজিক সূচকে বাংলাদেশের যে অর্জন সেটাও লক্ষণীয়। বাংলাদেশের একটি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ উন্নয়নের অংশীদার হলো ভারত। আমরা আমাদের অংশীদারিত্বের ইতিহাস, সংস্কৃতি এবং আমাদের মানুষকে সংযোগের ভিত্তিতে একটি সমৃদ্ধ ভবিষ্যৎ গড়ার প্রত্যাশায় আছি।

এছাড়া বুদ্ধিমাত্বা, সাহসী নেতৃত্ব এবং জাতীয় অগ্রগতির গতিপথ পরিবর্তনের ক্ষেত্রে অক্লান্ত পরিশ্রমের জন্য প্রধানমন্ত্রী হাসিনার প্রশংসা করেছেন ঢাকায় অবস্থানরত কূটনীতিকরা। সেই সঙ্গে শেখ হাসিনার তত্ত্বাবধানে উন্নয়নের অপ্রতিরোধ্য পথ দেখে মুগ্ধ হয়ে ঢাকার কূটনীতিক এবং বিদেশি মিশনের প্রধানরা তাকে মানব সুরক্ষার চ্যাম্পিয়ন বলে অভিহিত করেছেন।

শেখ হাসিনাকে মানব সুরক্ষার চ্যাম্পিয়ন হিসাবে অভিহিত করে বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত ইতো নওকি বলেছেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত একটি সমাজ গঠনের চেষ্টা করছেন।

শনিবার রাতে আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপ কমিটি আয়োজিত একটি ওয়েবিনারে অংশ নিয়ে ভিশন ২০৪১ বাস্তবায়নে শেখ হাসিনাকে সহায়তা করার প্রতিশ্রুতিও পুনর্ব্যক্ত করেন তারা।

শেখ হাসিনার জন্মদিন (২৮ সেপ্টেম্বর) উপলক্ষে ওয়েবিনারটি পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবদুল মোমেনের সাথে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার শাহ আলী ফরহাদ মডারেট করেছিলেন।

এছাড়া অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এম শাহরিয়ার আলম, আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপ কমিটির চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের রাষ্ট্রদূত মুহাম্মদ জমির এবং আন্তর্জাতিক বিষয়ক কমিটির সেক্রেটারি ড. শাম্মী আহমেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।