ভাল মা হওয়ার পরামর্শ দিলেন অভিনেত্রী কাজল

44
Social Share

সব সময় নিয়ম মেনে সবকিছু হয় না। নিয়ম কানুন মেনে কখনোই ভালো মা বা মন্দ মা হওয়া যায় না। মুম্বইয়ের এক সাক্ষাৎকারে এমনই মন্তব্য করলেন বলিউড অভিনেত্রী কাজল। সবার সাথে ভাগ করে নিয়েছেন মাতৃত্ব বিষয়ে তনুজার দেওয়া কিছু উপদেশ।

‘দিলওয়ালে দুলহনিয়া লে জায়েঙ্গে’-এর সিমরন, ‘কুচ কুচ হোতা হ্যায়’-র সেই অঞ্জলির পরিচয় পেরিয়ে সাম্প্রতিক ওয়েব সিরিজ ‘ত্রিভঙ্গ’-তে অনুরাধা নামক এক মায়ের ভূমিকায় তিনি। আর তা ঘিরেই কথা ওঠে অভিভাবকত্ব নিয়ে। কাজল বলেন, ‘ভাল মা’ হয়ে ওঠার চাপটা কখনওই কমতে চায় না নারীদের উপর থেকে। সন্তানকে স্কুল থেকে নিতে না গেলে, তার জন্য নিজে হাতে টিফিন না বানালে নারীদের  আর ‘ভাল মা’ হয়ে ওঠা হয় না। ফলে সমস্যা হল এই যে, খারাপ মা বানিয়ে দেওয়ার কারণের অভাব ঘটে না। এ দিকে, ভাল মা হয়ে ওঠার মতো উপলক্ষের বড়ই অভাব! ‘এ দিকে মেয়েদের উপরে সমাজের এক সাঙ্ঘাতিক চাপ থাকে ভাল মা হয়ে ওঠার জন্য।”

চাকরিরতা মা এবং দিনভর বাড়িতে ব্যস্ত থাকা মায়েদের মধ্যে সামাজিক বিভাজন প্রসঙ্গেও কথা তোলেন কাজল। যে মায়েরা বাইরে কাজ করেন, তারা কখনও কখনও গৃহবধূদের নিচু চোখে দেখেন বলে মনে করান অভিনেত্রী। আবার সেই চাকরিরতারাই চিন্তিত থাকেন নিজের সন্তানকে যথেষ্ট সময় দিতে পারছেন কি না, তা ভেবে। সে প্রসঙ্গ টেনেই কাজল বলেন, নারীরা দিনভর বাড়িতে সন্তানের যত্ন নেন তাদের আমি মুগ্ধ হয়ে দেখি। তাদের মত ক্ষমতা সবার থাকে না।

কথায় কথায় কাজল বলেন, মাতৃত্ব সংক্রান্ত বই পড়ে বেশি কিছু শেখা যায় না। শিশুর পোশাক বদলানো মোটেই মায়েদের একমাত্র কাজ নয়। বই ওইটুকুই শেখায়। বাকি তো নিজেকেই বুঝে বুঝে নিতে হয় বলে মন্তব্য করেন দুই সন্তানের মা কাজল। ,

অভিভাবকত্ব সম্পর্কে নিজের মায়ের থেকে কী শিখেছেন কাজল। মা তনুজা তাকে শিখিয়েছেন, সন্তানকে নিজের প্রয়োজন এবং ভাল-মন্দ বুঝতে শেখাতে হবে। একটি সিদ্ধান্ত নেওয়ার পরে সন্তান সে বিষয়ে স্বচ্ছন্দ থাকতে পারছে কি না, সেটি দেখাই অভিভাবকের কাজ। দুই সন্তান যুগ আর নাইসাকে বড় করার ক্ষেত্রে নিজের মায়ের দেওয়া এমনই উপদেশ মেনে চলেছেন কাজল।

সূত্র: আনন্দবাজার