ভারত-নেপাল বিরোধ: দূরদর্শন বাদে সব ভারতীয় নিউজ চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ করলো নেপালের কেবল অপারেটররা

Social Share

নেপালের প্রধানমন্ত্রী কে পি ওলি সম্পর্কে ‘আপত্তিকর ও অগ্রহনযোগ্য’ সংবাদ প্রচার করায় একটি ছাড়া ভারতের আর কোন নিউজ চ্যানেল সম্প্রচার না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নেপালের কেবল অপারেটররা।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে নেপালের কেবল অপারেটররা তাদের দেশে ভারতের ওই সব নিউজ চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ করে দেয়।

নেপালের কেবল অপারেটররা ভারতীয় নিউজ চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিজেরাই নিয়েছে বলে খবর প্রকাশ করেছে বিবিসি নেপালি সার্ভিস।

কেবল অপারেটরদের বরাত দিয়ে ঐ খবরে বলা হয়, নেপালের প্রধানমন্ত্রী কে পি ওলির সঙ্গে নেপালে নিযুক্ত চীনা রাষ্ট্রদূত হউ ইয়ানচির বৈঠক সংক্রান্ত একটি খবর প্রকাশ করার পর এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেবল অপারেটররা।

বিভিন্ন সূত্রের উল্লেখ করে বিবিসি নেপালি জানায় যে, নেপাল সম্পর্কে আপত্তিকর খবর প্রচার করায় দিল্লিতে নেপালের দূতাবাস আনুষ্ঠানিকভাবে ভারত সরকারের কাছে অভিযোগ জানিয়েছে।

এই বিষয়টি নিয়ে আইনি এবং কূটনৈতিকভাবে পদক্ষেপ নেয়ার বিষয়ে বৃহস্পতিবার মন্তব্য করেছিলেন নেপাল সরকারের মুখপাত্র ও যোগাযোগমন্ত্রী যুবরাজ খাতিওয়াড়া।

যেসব কারণে সম্প্রচার বন্ধ করার সিদ্ধান্ত

ভারত নিজেদের বলে দাবি করে, এমন বিতর্কিত ভূখণ্ড কালাপানি আর লিপুলেখকে নেপাল নিজেদের মানচিত্রে অন্তর্ভুক্ত করার পর দুই দেশের সম্পর্কে টানাপোড়েন তৈরি হয়। আর এরপরই ভারতের সংবাদ মাধ্যমগুলো আপত্তিকর সংবাদ প্রকাশ করছে বলে অভিযোগ তুলেছেন নেপালের কেবল অপারেটররা।

ডিটিএইচ সেবাদানকারী দিশোম-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক সুদীপ আচার্য মন্তব্য করেন, নেপালের বিরুদ্ধে ঢালাওভাবে খবর প্রচার করার বিরুদ্ধে প্রতীকী প্রতিবাদ হলো অপারেটদের ভারতীয় চ্যানেল বর্জন।

মেরো টিভির ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকাশ ঘিমিরে জানান, গত দুই-তিন মাস ধরে গ্রাহকদের কাছ থেকে অভিযোগ পাওয়ার পর তারা ভারতীয় চ্যানেল বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

মি. ঘিমিরে এ বিষয়ে আরও মন্তব্য করেছেন যে নেপালের চ্যানেল যদি ভারত সম্পর্কে ‘অসহ্য খবর’ প্রচার করে, তাহলে ভারতেরও উচিত নেপালের চ্যানেল নিষিদ্ধ করে দেয়া।

তবে আপাতত অনির্দিষ্টকালের জন্য সম্প্রচার বন্ধ করলেও এ বিষয়ে সরকারের সাথে আলোচনার পর পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়ার ব্যাপারে আশাবাদ প্রকাশ করেন নেপালের কেবল অপারেটররা।

ম্যাক্স টিভির চেয়ারম্যান দিনেশ সুবেদি জানান, শুক্রবার কেবল অপারেটরদের নিজেদের মধ্যে বৈঠকে এই বিষয় নিয়ে আলোচনার কথা রয়েছে।

আনুষ্ঠানিক প্রতিবাদ নেপালের

ভারতের টিভি চ্যানেলের ‘আপত্তিজনক’ খবর প্রচারের প্রেক্ষিতে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ করেছে দিল্লিতে নেপালি দূতাবাস।

দূতাবাসের একজন কর্মকর্তা জানান, “আমরা আনুষ্ঠানিক ও অনানুষ্ঠানিক, এই দুই ভাবেই এই বিষয়টি কর্তৃপক্ষের কাছে উপস্থাপন করেছি।”

বিবিসি’কে ঐ কর্মকর্তা বলেন, “ভারত সরকারও বিষয়টিকে গুরুত্ব সহকারে নিয়েছে এবং তারাও মনে করে যে প্রচার করা খবর আপত্তিকর।”

ওদিকে নেপালের কেবল অপারেটররা নিজে থেকে ভারতীয় চ্যানেল সম্প্রচার না করার সিদ্ধান্ত নেয়ার পেছনে নেপাল সরকারের মদদ আছে বলে মনে করে বাকস্বাধীনতা নিয়ে কাজ করা নেপালের অ্যাক্টিভিস্টরা।

ভারত-নেপাল সাম্প্রতিক বিরোধ

ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ৮ই মে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে চীনের তিব্বত সীমান্তের কাছে লিপুলেখের সাথে সংযুক্তকারী ৮০ কিলোমিটার লম্বা একটি রাস্তা উদ্বোধন করেন।

রাস্তাটি উদ্বোধনের সাথে সাথে নেপাল প্রতিবাদ জানায়, যে এলাকার মধ্য দিয়ে এই রাস্তা নেওয়া হয়েছে তার অনেকটাই তাদের। কোনো কথাবার্তা ছাড়াই এই জায়গার ভেতর দিয়ে ভারতের এই রাস্তা তৈরি তারা কখনই মানবে না।

নেপাল একই সাথে ঐ অঞ্চলের কাছে তাদের পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করে, আর কাঠমান্ডুতে ভারতীয় দূতকে ডেকে প্রতিবাদ জানায়।

তারপর ভারতের কাছ থেকে কোনো সাড়া না পেয়ে গত শনিবার নেপালের সংসদের নিম্নকক্ষ দেশের নতুন একটি মানচিত্র অনুমোদন করে, যেখানে কালাপানি নামে পরিচিত প্রায় চারশো বর্গকিলোমিটারের ঐ পাহাড়ি এলাকাটিকে তাদের এলাকা বলে দেখানো হয়।

এক সময়ে ঐতিহাসিকভাবে ভারতের অনুগত হিসেবে পরিচিত ক্ষুদ্র এই প্রতিবেশীর এসব প্রতিক্রিয়ায় ভারতে একাধারে বিস্ময় এবং উদ্বেগ তৈরি হয়।