ভারত-চীন সংঘ’র্ষের আবহেই ভারতের পাশে এসে দাঁড়িয়ে বড় ঘোষণা ফ্রান্স সরকারের

Social Share

করোনার স-ন্ত্রা-স এখনও অব্যাহত সারা ভারত জুড়ে। প্রতিদিন আ-ক্রা-ন্ত হ‌ওয়ার নিরিখে রেকর্ড তৈরি করছে এই মা-র-ণ ব্যাধি। এখনও পর্যন্ত বহু মানুষের প্রাণ গিয়েছে। বিজ্ঞানীরা নিরলস পরিশ্রম করছেন এই মা-র-ণ ব্যাধির অ্যান্টিভাইরাস বের করার জন্য। কিন্তু এখনো কোনো সঠিক দিশা খুঁজে পাচ্ছেন না তাঁরা।

তবে রাশিয়া এবং আমেরিকার বিজ্ঞানীরা আশার আলোর উৎস দেখিয়ে বলেছেন যে, খুব শীঘ্রই তাঁরা করোনার ভ্যাকসিন বের করতে চলেছেন। যার ফলে অতীতের সেই স্বাভাবিক দিনগুলো ফিরে পাওয়ার স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছেন জনসাধারণ। রাজ্য তথা কেন্দ্রের পক্ষ থেকে প্রথম থেকেই নাগরিকদের নির্দিষ্ট দূরত্ববিধি মেনে চলতে বলা হয়েছে। মেনে চলতে বলা হয়েছে সমস্ত রকম সুরক্ষা বিধিও।

 

কিন্তু কিছুতেই নিয়ন্ত্রণে আসছে না এই করোনার প্রকোপ। ইতিমধ্যেই অনেক মানুষের প্রাণ কেড়েছে এই প্রাণঘাতী রোগ। অনেকেই সুস্থ্য‌ও হয়েছেন। তবে এখনো অনেকেই নির্দিষ্ট দূরত্ববিধি মেনে চলছে না। অনেকেই মাস্ক পরা, স্যানিটাইজার ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকছেন। যার ফলে প্রকোপ বাড়ছে করোনা। ভারতে ইতিমধ্যেই করোনার প্রকোপ ৯ লক্ষ ছাড়িয়ে গিয়েছে

এবার এই আবহেই ভারতের পাশে থাকার বার্তা দিলো বন্ধুরাষ্ট্র ফ্রান্স। এমনিতেই ফ্রান্সের থেকে ভারত কিনেছে অন্যতম শক্তিশালী ফা-ই-টা-র প্লেন ‘রাফায়েল’। মঙ্গলবার ভারতে ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূত বলেছেন এই পরিস্থিতিতে ফ্রান্স ভারতের জন্য বিশেষ প্যাকেজ ঘোষণা করেছে। ফ্রান্স রাষ্ট্রদূত ইমানুয়েল লেনায় বলেছেন যে, “ভারত , ফ্রান্সের জন্য করোনা চিকিৎসার প্রয়োজনীয় উপকরণ এবং ওষুধের ব্যবস্থা করেছে।

তাই ভারতের সবথেকে দূর্বল জনগোষ্ঠীর জন্য ফ্রান্সের উন্নয়ন এজেন্সি ১ হাজার ৬০০ কোটি টাকার প্রকল্পকে মঞ্জুরি দিয়েছে। ভারতে আটকে পড়া ফ্রান্সের নাগরিকদের ভারত সুরক্ষিত ভাবে দেশে ফিরিয়ে দিয়েছে। এরজন্য ভারতীয় আধিকারিকদের আমরা কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

আমরা খুব তাড়াতাড়িই একটি বিশেষ প্যাকেজ ঘোষণা করতে চলেছি , যেখানে ভারতের জন্য ভেন্টিলেটর, সেরেলোজিক্যাল টেস্ট কিট সহ আরো গুরুত্বপূর্ণ কিছু উপকরণ থাতে চলেছে।“ফ্রান্সের এই ঘোষণার দরুন ভারতে করোনা চিকিৎসায় এক দারুন উন্নয়নের আশা করা হচ্ছে।