ভারতে শ্রীঘ্রই ‘দুই সন্তান নীতি’ কার্যকর করতে চলেছে বিজেপি শাসিত অসম

42
Social Share

অনেক আগেই বিল পাশ হয়েছিল। এবার ভারতের অসমে আংশিকভাবে কার্যকর হয়ে গেল দুই সন্তান নীতি। মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা ঘোষণা করলেন, রাজ্যে আংশিকভাবে দুই সন্তান নীতি লাগু করা হলো। এই নীতি মানতে হবে সবাইকে। আর তা অমান্য করলে সরকারি সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত হতে হবে। যার ফলে দেশের প্রথম রাজ্য হিসেবে জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে বড় পদক্ষেপ নিল বিজেপি শাসিত অসম।

সর্বানন্দ সোনওয়াল মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীন ২০১৯ সালে জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে আইন পাশ করে অসম। যাতে বলা হয়েছে, ২০২১ সালের পর যে সমস্ত দম্পতির দুইয়ের বেশি সন্তান থাকবে তাদের মিলবে না সরকারি চাকরি। এছাড়া যারা সরকারি চাকরি করছেন, তাদেরও দুইয়ের বেশি সন্তান নিতে পারবেন না। দুইয়ের বেশি সন্তান নিলে, তাদের চাকরি নিয়েও টানাটানি পড়তে পারে।

মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণের স্বার্থেই এই নীতি। তবে কেন্দ্রের কোনও প্রকল্প যেমন- প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা, বিনামূল্য়ে স্কুল, কলেজে ভর্তির মতো সুবিধায় দুই সন্তান নীতি প্রযোজ্য করা যাবে না। অসম সরকারের গৃহ প্রকল্পে এই ব্যবস্থা লাগু হবে। ধীরে ধীরে দুই সন্তান নীতি রাজ্য সরকারের সব প্রকল্পের ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য হবে।

হিমন্ত বিশ্বশর্মা বলেন, ঋণ মকুব থেকে শুরু করে রাজ্য সরকারের অন্য সকল প্রকল্পের সুবিধা, সব ক্ষেত্রেই দুই সন্তান নীতি মানা হচ্ছে কিনা, তা খতিয়ে দেখা হবে। তফসিলি জাতি, উপজাতি, চা বাগানের কর্মী, সরকারি প্রকল্পের সুবিধা নিতে প্রত্যেককে মানতে হবে এই নীতি।

তবে মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মারা পাঁচ ভাই-বোন। যা নিয়ে বিরোধীদের কটাক্ষের শিকার হয়েছেন তিনি। এ বিষয়ে হিমন্ত বিশ্বশর্মা বলেন, ১৯৭০-এর দশকে আমার বাবা-মা কি করেছেন এখন তা টেনে লাভ নেই। ৭০-য়ের দশকে ফিরে গিয়ে সমস্যার সমাধান সম্ভব নয়। কিন্তু বিরোধীরা এই বিষয়টি টেনে এনে রাজ্যকে ৭০-র দশকে ফিরিয়ে নিয়ে যেতে চাইছেন।কলকাতা ট্রিবিউন