ভাঙ্গায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন ’ আ’লীগ ১ স্বতন্ত্র ১১ প্রার্থীর বিজয়

129
ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন
Social Share

ভাঙ্গা প্রতিনিধি: ফরিদপুর জেলার ভাঙ্গা উপজেলার ১২টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন রোববার একটি উৎসবমুখর পরিবেশের মধ্যে দিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বিরতহীনভাবে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। উপজেলা নির্বাচন অফিসারের কার্যালয় থেকে ঘোষিত ফলাফল অনুসারে ১২টি ইউনিয়নের মধ্যে আওয়ামীলীগের নৌকা মার্কার একজন প্রার্থীর বিজয় লাভ করেছেন। তবে নৌকার বিপরীতে স্বতন্ত্র ১১ প্রার্থী বিপুল ভোটে বিজয় লাভ করেছেন।

জানা গেছে, উপজেলার ১২টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনীত (কাজী জাফর উল্লা প্রেসিডিয়াম মেম্বর এর সমর্থিত) নৌকা নিয়ে ভোটের মাঠে ১২জন প্রার্থী হলেও এদের মধ্যে ৩নং কাউলীবেড়ার নৌকার কাণ্ডারি রেজাউল হাসনাত দুদু মিয়া বিজয় লাভ করেছেন। তিনি নৌকার মাঝির পাশাপাশি গত দুটি ইউপি নির্বাচনেও নিজের ব্যক্তিগত ইমেজে বিজয় লাভ করার ধারাবাহিকতায় এবারও নৌকা প্রতীক নিয়ে বিজয় লাভ করেছেন বলে সাধারণ ভোটারদের অভিমত।

সকাল আটটা থেকে বিকেলে চারটা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ শেষে কেন্দ্রগুলতে ভোট গণনার পর সন্ধ্যায় উপজেলা পরিষদ ফলাফল সেন্টার একের পর ইউনিয়ন থেকে আসতে থাকে চেয়ারম্যান, সাধারণ আসন ও সংরক্ষিত মহিলা আসনের প্রার্থীদের প্রাপ্ত ভোটের ফলাফল।

ভাঙ্গা উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং অফিসার মঞ্জুরুল আলম, মৎস্য অফিসার দেবলা চক্রবর্তী, কৃষি অফিসার সুদর্শন শিকদার, শিক্ষা অফিসার মুন্সী রুহুল আসলাম, পরিসংখ্যান অফিসার যারা বিভিন্ন ইউনিয়নের রিটার্নিং অফিসারের দায়িত্ব পালনরতরা রাত সাড়ে ১১টার দিকে পূর্ণ ফলাফল ঘোষণা করেন।

১১টি ইউনিয়নে যারা নৌকার প্রার্থীর বিপরীতে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা বিজয় লাভ করেছেন তারা হলেন, ১ নং মানিকদহ ইউনিয়নে একেএম শহীদুল্লাহ বাচ্চু মিয়া। ২নং নুরুল্যাগঞ্জ ইউনিয়নে শাহীন আলম সাহাবুর। ৪নং নাসিরাবাদ ইউনিয়নে আলমগীর খান। ৫নং তুজারপুর ইউনিয়নে ওয়ালীউর রহমান ওলি, ৬ নং হামিরদী ইউনিয়নে আলহাজ্ব খোকন মিয়া। ৭নং আলগী ইউনিয়নে মম ছিদ্দিক মিয়া। ৮নং চুমুরদী ইউনিয়নে রফিকুল ইসলাম সোহাগ। ৯নং ঘারুয়া ইউনিয়নে মুনসুর আহামেদ মুন্সী। ১০নং কালামৃধা ইউনিয়নে মোঃ রেজাউল মাতুব্বর। ১১নং আজিমনগর ইউনিয়নে আলহাজ্ব শাজাহান হাওলাদার। ১২নং চান্দ্রা ইউনিয়নে আলহাজ্ব আঃ খালেক মোল্লা।

ভাঙ্গা উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং অফিসার মঞ্জুরুল খোলাকাগজ প্রতিনিধিকে জানান, ১২জন নৌকা প্রতীক চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ মোট ৭৮ জন চেয়াম্যান, ৩২৮ জন সাধারণ আসন ও ১৩৭জন সংরক্ষিত মহিলা আসনের প্রার্থীরা নির্বাচনে প্রতি দ্বন্ধিতা করেন। ১১৮টি ভোট কেন্দ্রের ৪৯০টি বুথে প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার এবং ৯৮০ জন পুলিং অফিসার ভোট গ্রহণ করার পাশাপাশি ১২ জন ম্যাজিস্ট্রেট, ৪ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, তিনজন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, তিন প্লাটুন বিজিবি, ৫ প্লাটুন আনসার ব্যাটিলিয়ান, র‍্যাবের দুটি স্ট্রাইকিং ফোস এবং প্রতি তিনটি ইউনিয়নে পুলিশের একটি করে স্ট্রাইকিং ফোস নির্বাচনের দিন সার্বিক আইনশৃঙ্খলা রক্ষা কাজে দায়িত্ব পালন করেন।
প্রতিটি ইউনিয়ন পরিষদ ভোট কেন্দ্রে উপজেলা নির্বাচন অফিস কার্যালয় হতে নির্বাচনী সকল প্রকার সরঞ্জাম পৌঁছে দেওয়া হয় এবং একটি সুন্দর ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সাধারণ ভোটারগণ তাদের ভোট প্রয়োগ করার লক্ষে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা অনুসারে ব্যবস্থা গ্রহণে ভাঙ্গা উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা নির্বাচন অফিস কার্যালয় দায়িত্ব পালনে সচেষ্ট ছিল বলে নির্বাচন শান্তিপূর্ণ হওয়ায় তিনি সবার কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।