ভরা মৌসুমে ইলিশ কম, দাম বেশি!

41
Social Share

ইলিশের মৌসুমে উপকূলের বরগুনার বেতাগী বিষখালী নদীতে জেলেদের জালে কম ইলিশ ধরা পড়ছে। ইলিশ সরবরাহ কম হওয়ায় এবং দাম বেশি থাকায় নিম্ন আয়ের মানুষ ইলিশ কিনতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। মৌসুমে আশানুরূপ মাছ ধরা না পড়ায় হতাশ উপকূলের জেলে পরিবারগুলো।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, মধ্য আগস্ট থেকে নভেম্বর মাস পর্যন্ত বাংলা শ্রাবণের শেষ সপ্তাহ থেকে কার্তিক মাস পর্যন্ত ইলিশের ভরা মৌসুম। এ মৌসুমে পূর্ণিমা তিথিগুলোতে গভীর সমুদ্র থেকে ডিম পাড়ার জন্য ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ নদীতে চলে আসে। এ সময় জেলেদের জালে ধরা পড়ে।

জেলা মৎস্য অফিসের পরিসংখ্যানে জানা যায়, ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে পাথরঘাটার মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রে ৩ হাজার ৭৭৫ দশমিক এক মেট্রিক টন ইলিশ উঠেছে। ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে ৭০০ মেট্রিক টন কমে গিয়ে ইলিশ উঠেছে তিন হাজার ২১ দশমিক তিন মেট্রিক টন। পরবর্তী অর্থবছরে ইলিশ কমে যায় আরো ১০০ টন। সর্বশেষ ২০২০-২১ অর্থ বছরে এক হাজার ৭৫৯ মেট্রিক টন কমে গিয়ে ইলিশ উঠেছে এক হাজার ১৫২ দশমিক ৫৭ মেট্রিক টন।

জেলার পাথরঘাটায় দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রের তথ্যানুসারে, গত ৪ বছর ধরে মাত্রাতিরিক্ত হারে ইলিশের পরিমাণ কমে এক তৃতীয়াংশে নেমে গেছে।

অন্যদিকে, ইলিশ সম্পদ রক্ষা করতে বরগুনার তিনটি নদী ও মোহনাকে ইলিশের অভয়াশ্রম ঘোষণা দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন গবেষকরা।

গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে প্রতিমণ গ্রেডের (বড় সাইজের) ইলিশের দাম ১০ হাজার টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। বেতাগী মৎস্য কর্মকর্তা মো. কামাল হোসেন এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘কিছু দিন আগে অমাবশ্যা জো কেটে যাওয়ায় এখন তেমন একটা মাছ পড়ছে না। আবার সামনের পূর্ণিমা জো এলেই ইলিশ ধরা পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।’

বেতাগী জেলে পাড়ার কমল দাস বলেন, ‘অনেক এনজিও ও বিভিন্ন ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়েছি। সেই ঋণে টাকা ইলিশ বিক্রির টাকা দিয়ে পরিশোধ করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু ইলিশ ধরা না পড়ায় দেনাও শোধ করতে পারছি না আমরা।’

পৌর শহরের ইলিশ ব্যবসায়ী শাহিন হাওলাদার বলেন, গত কয়েক  দিন মোকামে সাগরের ইলিশের আমদানি কমে গেছে। এ ছাড়া আমাদের বিষখালী নদীতেও কম মাছ ধরা পড়েছে। তাই দাম অনেক বেড়ে গেছে। কিছু কিছু জেলেরা খুব কম পরিমাণ ইলিশ নিয়ে এলেও বেশির ভাগ ট্রলারই থাকে ইলিশ শূন্য।

উপজেলা মৎস্য সমিতির সভাপতি আব্দুর রব সিকদার বলেন, চাহিদার তুলনায় কম মাছ ধরা পড়ায় দাম বেড়েছে। তবে আবার বেশি মাছ ধরা পড়লে দামও কমবে।

জেলার বৃহৎ মৎস্য কেন্দ্র পাথরঘাটা থেকে আসা কয়েকজন আড়তদার জানান, গত বছরের মতো এ মৌসুমে ইলিশ জালে ধরা পড়ছে না। যার কারণে ইলিশের চাহিদা বৃদ্ধি পেয়েছে। দামও কয়েকগুণ বেড়ে গেছে। তবে খুব শিগগিরই অনেক ইলিশ ধরা পড়বে। তখন আবার দাম কমে যাবে।

বেতাগী পৌর শহরের ইলিশ মোকামের কয়েকজন আড়তদার জানান, ইলিশ কম ধরা পড়ায় দাম বেড়েছে।