বোরহানউদ্দিনে সহিংসতা: জেলা প্রশাসনের তদন্ত প্রতিবেদন জমা

ভোলার বোরহানউদ্দিনে সহিংসতার ঘটনায় তদন্ত প্রতিবেদন জমা পড়েছে। আজ শনিবার (২৬ অক্টোবর) সকালে ১৫ পৃষ্ঠার প্রতিবেদন জমা দেয় জেলা প্রশাসন গঠিত তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি।

ভোলার জেলা প্রশাসক মাসুদ আলম সিদ্দিক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তদন্ত প্রতিবেদন হাতে পাওয়ার পরই তা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে পেশ করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

তদন্ত কমিটির প্রধান স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক মাহমুদুর রহমান বলেন, ২০ তারিখে তদন্ত কমিটি গঠনের পর আমরা দুই দিন সময় বাড়িয়ে নিয়েছিলাম। তদন্ত শেষ করে আজ সকালে তা জমা দেওয়া হয়েছে। কমিটিতে আরও ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (আইসিটি ও শিক্ষা) আতাউর রহমান ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাসিনুল হাকিম।

গত ১৮ অক্টোবর রাতে বোরহানউদ্দিন থানায় গিয়ে একটি জিডি করেন বিপ্লব চন্দ্র শুভ নামের এক যুবক। সেখানে তিনি তাঁর ফেসবুক আইডি হ্যাকারের কবলে পড়ার কথা জানান। শুভর মেসেঞ্জারে ‘নবীকে নিয়ে অবমাননাকর বক্তব্য’ ছড়িয়ে সেই ‘স্ক্রিনশট’ ব্যবহার করে ওইদিন থেকে বোরহানউদ্দিনে উত্তেজনা সৃষ্টি করা হয়। এরপর শুভর বিচারের দাবিতে রবিবার বোরহানউদ্দিন ঈদগাহ ময়দানে ‘মুসলিম তৌহিদী জনতা’র ব্যানারে বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে পুলিশের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে। উপজেলা সদরে দুই ঘণ্টা ধরে দফায় দফায় সংঘর্ষে চারজন নিহত হয়, আহত হয় ১০ পুলিশ সদস্যসহ শতাধিক।

সংঘর্ষের মধ্যে পুলিশের দিকে গুলিও ছোড়া হয়। তাতে একজন পুলিশ সদস্য গুরুতর আহত হন। ওই ঘটনায় বরিশাল রেঞ্জের ডিআইজিকে প্রধান করে গত রাতে পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে পুলিশ সদর দপ্তর। কমিটিকে সাত কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়।

অন্যদিকে, একই ঘটনায় স্থানীয় সরকার শাখার উপপরিচালক মাহমুদুর রহমানকে প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে জেলা প্রশাসন।