বেহাল দশায় ভারতের অর্থনীতি : ব্লুমবার্গ

Social Share

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ‌্যম ব্লুমবার্গ জানিয়েছে, গত ৪২ বছরে ভারতের অর্থনীতির এমন বেহাল অবস্থা হয়নি। তাঁদের পরামর্শ, ভারত সরকারের এই সমস‌্যাটির প্রকৃত অবস্থা অনুধাবন করা উচিত।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আজ বৃহস্পতিবার ৪০ অর্থনীতিবিদকে নিয়ে বৈঠকে বসেছেন। আর এই বৈঠকের আগে আন্তর্জাতিক সংস্থার এই রিপোর্ট যে প্রধানমন্ত্রীকে চাপে রেখেছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

এদিকে, মঙ্গলবার ভারতের জাতীয় পরিসংখ্যান দপ্তর (এনএসও) তাদের প্রথম পূর্বাভাস প্রকাশ করেছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে, ২০১৯-২০ আর্থিক বছরে ভারতের প্রকৃত জিডিপি বৃদ্ধির হার হবে ৪.৯৮ শতাংশ। ২০০৮-০৯ আর্থিক বছরে, যে সময় বিশ্বব্যাপী আর্থিক মন্দা দেখা দিয়েছিল, তারপর থেকে এত খারাপ হাল আর হয়নি। দাবি অর্থনীতিবিদদের একাংশের। সে বছর এই হার ছিল ৩.৮৯ শতাংশ। কিন্তু এর চেয়েও তাৎপর্যপূর্ণ একটি বিষয় দেখা যাচ্ছে।

নমিনাল বৃদ্ধির হার অনুমান করা হচ্ছে ৭.৫৩ শতাংশ, যা ১৯৭৫-৭৬ আর্থিক বছরের পর একটি রেকর্ড। সেই আর্থিক বছরে এই হার ছিল ৭.৩৫ শতাংশ। আরও একটি বিষয় আছে। ২০০২-০৩ আর্থিক বছরের পর নমিনাল জিডিপি বৃদ্ধির হার এই প্রথম এক অঙ্কে এসে পৌঁছেছে। এর আগে রিজার্ভ ব‌্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া (আরবিআই) চলতি আর্থিক বছরে জিডিপি বৃদ্ধির পূর্বাভাস সংশোধন করে ৫ শতাংশ করেছে।

ব্লুমবার্গ বলছে, এই পূর্বাভাস প্রকৃত অর্থনীতির জন‌্য যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ। কারণ, এই পূর্বাভাসের ওপর নির্ভর করেই কোনও সরকার পরবর্তী আর্থিক বছরের বাজেট প্রস্তুত করে থাকে। সেই বাজেটে নমিনাল বৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণের একটি বিষয় থাকে। কর আদায়ের লক্ষ‌্যমাত্রাও ঠিক করা হয়ে থাকে এর ভিত্তিতেই। ফলে সেই জিডিপি বৃদ্ধির হার কম থাকলে, তার প্রভাব পড়বে আগামী বাজেটে।

প্রসঙ্গত, জিডিপি হলো কোনও একটি নির্দিষ্ট বছরে সমস্ত পণ্য ও পরিষেবার বাজারমূল্য। যার মধ্যে পণ্যের উপর ধার্য সমস্ত কর ও ভর্তুকিও ধরা থাকে। বর্তমান দামের বাজারমূল্য হলো নমিনাল জিডিপি। একটি নির্দিষ্ট ভিত্তিবর্ষে সমস্ত পণ্যের মোট মূল্য হল প্রকৃত জিডিপি। সহজ করে বললে, নমিনাল জিডিপি থেকে মুদ্রাস্ফীতি বাদ দিলে প্রকৃত জিডিপি বেরিয়ে আসে।

সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন