বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী

চীনের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় বন্দরনগরী দালিয়ানে আজ মঙ্গলবার সকালে বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের (ডব্লিউইএফ) বার্ষিক সম্মেলন আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছে। ডব্লিউইএফের সামার দাভোস নামে পরিচিত এই সম্মেলনের উদ্বোধনী পর্বে সকালে যোগ দিয়েছেন সফররত বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিকেলে তাঁর প্যানেল আলোচনায় অংশ নেওয়ার কথা।

দালিয়ান আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আজ সকালে এই সম্মেলনের উদ্বোধন করেন চীনের প্রধানমন্ত্রী লি কেছিয়াং। ডব্লিউইএফের নির্বাহী চেয়ারম্যান ও প্রতিষ্ঠাতা ক্লাউস সোয়াব এবং লিআনিং প্রদেশের গভর্নর ত্যাং ইউজুন অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।

তিন দিনব্যাপী এই সম্মেলনে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রপ্রধান, সরকারপ্রধান, ব্যবসায়ী, সমাজের প্রতিনিধি, শিক্ষাবিদ, শিল্পীসহ ১ হাজার ৮০০ জনের বেশি প্রতিনিধি যোগ দিয়েছেন।

সম্মেলনের এবারের প্রতিপাদ্য ‘লিডারশিপ ৪.০-সাকসিডিং ইন আ নিউ এরা অব গ্লোবালাইজেশন’। সম্মেলন থেকে বৈশ্বিক পরিবেশগত চ্যালেঞ্জ, আঞ্চলিক প্রতিযোগিতা, অর্থনৈতিক অসমতা ও প্রযুক্তিগত সংকটের বিষয়ে নতুন পরিকল্পনা প্রণয়নের আহ্বান জানানো হবে।

ডব্লিউইএফ সুইজারল্যান্ডের জেনেভাভিত্তিক একটি সংগঠন। ১৯৭১ সালে একটি অলাভজনক প্রতিষ্ঠান হিসেবে এই সংগঠনের জন্ম। সংগঠনটি ২০১৫ সালে আন্তর্জাতিক সংস্থার স্বীকৃতি পায়। ডব্লিউইএফের লক্ষ্যে বলা হয়েছে, এটি বিশ্বের রাষ্ট্রসমূহকে ব্যবসায়িক, রাজনৈতিক, প্রাতিষ্ঠানিক ও সমাজের অন্যান্য নেতৃবৃন্দকে বৈশ্বিক, আঞ্চলিক ও শিল্প খাতকে এগিয়ে নেওয়ার অঙ্গীকার নিয়ে গঠিত।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পাঁচ দিনের সফরে গতকাল সোমবার রাত সোয়া ১২টার দিকে চীনের দালিয়ানে পৌঁছান। চীনের প্রধানমন্ত্রী লি কেছিয়াংয়ের আমন্ত্রণে এই দ্বিপক্ষীয় সরকারি সফর হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রীর চীন সফরে রোহিঙ্গা ইস্যুটি প্রাধান্য পাবে। বেইজিং রোহিঙ্গা সংকটটি নিরসনে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে বলে আশা করা হচ্ছে। এ সময়ে বেইজিংয়ের সঙ্গে আটটি চুক্তি স্বাক্ষর হবে।