বিক্ষোভে উত্তাল ইরাকে নিহত ৬০, আহত ২০০০

ইরাকে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ অব্যাহত রয়েছে। গতকাল শুক্রবার বাগদাদে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনীর সংঘর্ষে অন্তত ১৭ জন নিহত হয়েছে। গত ৪ দিনে চলমান বিক্ষোভে অন্তত ৬০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া প্রায় দুই হাজার জন আহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

ইরাকে সরকারবিরোধী বিক্ষোভের তীব্রতা ক্রমেই বাড়ছে। এর সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যুমিছিল। দেশটির প্রধানমন্ত্রীর শান্তির বার্তাতেও বিশেষ কাজ হচ্ছে না।

ইরাকে  দুর্নীতি, বেকারত্ব, জীবনযাপনের খারাপ মান-এসবের বিরুদ্ধে গত মঙ্গলবার থেকেই বিক্ষোভ চলছে । ২০০৩-এ সাদ্দাম হুসেনের পতনের পর শিয়া সম্প্রদায়ই ইরাকের শাসনব্যবস্থা সামলাচ্ছে। তারাই গত বছর আদেল আব্দুল-মেহদিকে ক্ষমতায় এনেছে। এই বিক্ষোভ সামলানো এখন মেহদির কাছে বিশাল পরীক্ষা।

শুক্রবার ইরাকের হিউম্যান রাইটস কমিশন জানিয়েছে, সরকারবিরোধী বিক্ষোভে নিরাপত্তাবাহিনীর গুলিতে এখন পর্যন্ত অন্তত ৬০ জনের মৃত্যুর খবর মিলেছে। রাজধানী বাগদাদের একটি হাসপাতালেই ১৮ জনের মৃত্যুর নথি লিপিবদ্ধ করা হয়েছে।

এদিকে, দেশবাসীর উদ্দেশে দেয়া ভাষণে মেহদি বলেছেন, ইরাকের সমস্যার কোনও ‘ম্যাজিক সমাধান’ নেই। বিক্ষোভকারীদের ধৈর্য ধরার পরামর্শ দেন তিনি। কিন্তু এতেও বিশেষ লাভ হয়নি। বরং প্রধানমন্ত্রীর কথা শুনে আরও ক্ষেপে উঠেছেন বিক্ষোভকারীরা।

গতকাল শুক্রবার জুম্মার নামাজের আগে শান্ত ছিল বাগদাদ। কিন্তু নামাজের পর জড়ো হতে থাকেন প্রতিবাদীরা। বিক্ষোভকারীদের ওপর গুলি চালায় নিরাপত্তাবাহিনী। ন্যূনতম বেতন স্থির করতে আর্থিক সংস্কারের আশ্বাস দিয়েছেন মেহদি। কিন্তু সে আশ্বাস বিক্ষোভকারীদের দমাতে পারছে না।

সূত্র : টাইমস অব ইসরায়েল, বিবিসি, এই সময়