‘বিএনপি নেতাকর্মীরা মামলা খাচ্ছেন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের জন্য’

68
নেতাকর্মীরা
Social Share

বিএনপি নেতাকর্মীরা নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে অহেতুক কোনো মামলা দেওয়া হচ্ছে না, গাড়ি ভাঙচুর ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের জন্য সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা হয় বলে জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

তিনি আজ মঙ্গলবার রংপুর র‌্যাব-১৩ এর উদ্যোগে ১০০০ জন গরিব, দুস্থ, অসহায়দের মাঝে কম্বল বিতরণকালে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন। মঙ্গলবার দুপুরে শহরের পার্শ্ববর্তী ধরলা নদীর দক্ষিণ পাশে মাঠে এই কম্বল বিতরণ করা হয়

এ সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, সীমান্তে হত্যাকাণ্ড বন্ধে ভারত-বাংলাদেশ যৌথভাবে কাজ করছে। সীমান্ত হত্যা বন্ধে দুই পক্ষের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও ডিজি, বিজিবি ও বিএসএফ পর্যায়ে নিয়মিত বৈঠক হয়। দুপক্ষের মাঝে সীমান্তে গুলিবর্ষণ না করার নীতিগত সিদ্ধান্ত আছে। তারপরেও কুড়িগ্রামসহ অন্য সীমান্তে কিছু অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটে। যা তদন্ত করা হয়।

শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন প্রাথমিক ও গণ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন, কুড়িগ্রামের স্থানীয় সংসদ সদস্য আছলাম হোসেন সওদাগর, পনির উদ্দিন আহমেদ ও অধ্যাপক এমএ মতিন, র‌্যাব-এর মহাপরিচালক চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন, অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন) কর্ণেল কে এম আজাদ, পুলিশের রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি দেবদাস ভট্রাচার্য্য, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম, পুলিশ সুপার সৈয়দা জান্নাত আরা, রংপুর র‌্যাব-১৩ এর অধিনায়ক কমান্ডার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমান উদ্দীন আহমেদ মঞ্জু, কুড়িগ্রাম পৌরসভার মেয়র কাজিউল ইসলাম প্রমুখ।

………………………………………………………………………………………………………

বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে অহেতুক কোনো মামলা দেওয়া হচ্ছে না, গাড়ি ভাঙচুর ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের জন্য সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা হয় বলে জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

তিনি আজ মঙ্গলবার রংপুর র‌্যাব-১৩ এর উদ্যোগে ১০০০ জন গরিব, দুস্থ, অসহায়দের মাঝে কম্বল বিতরণকালে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন। মঙ্গলবার দুপুরে শহরের পার্শ্ববর্তী ধরলা নদীর দক্ষিণ পাশে মাঠে এই কম্বল বিতরণ করা হয়।

এ সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, সীমান্তে হত্যাকাণ্ড বন্ধে ভারত-বাংলাদেশ যৌথভাবে কাজ করছে। সীমান্ত হত্যা বন্ধে দুই পক্ষের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও ডিজি, বিজিবি ও বিএসএফ পর্যায়ে নিয়মিত বৈঠক হয়। দুপক্ষের মাঝে সীমান্তে গুলিবর্ষণ না করার নীতিগত সিদ্ধান্ত আছে। তারপরেও কুড়িগ্রামসহ অন্য সীমান্তে কিছু অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটে। যা তদন্ত করা হয়।

শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন প্রাথমিক ও গণ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন, কুড়িগ্রামের স্থানীয় সংসদ সদস্য আছলাম হোসেন সওদাগর, পনির উদ্দিন আহমেদ ও অধ্যাপক এমএ মতিন, র‌্যাব-এর মহাপরিচালক চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন, অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন) কর্ণেল কে এম আজাদ, পুলিশের রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি দেবদাস ভট্রাচার্য্য, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম, পুলিশ সুপার সৈয়দা জান্নাত আরা, রংপুর র‌্যাব-১৩ এর অধিনায়ক কমান্ডার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমান উদ্দীন আহমেদ মঞ্জু, কুড়িগ্রাম পৌরসভার মেয়র কাজিউল ইসলাম প্রমুখ।