বাজারে এলো রিয়েলমি বাডস এয়ার ২ এবং বাডস এয়ার ২ নিও

50
Social Share

সেই দিন আর নেই যখন ইয়ারফোন শুধু গান শোনার জন্য ব্যবহৃত একটি ডিভাইস ছিল। প্রচুর স্মার্ট অপশনে ভরপুর চমত্কারভাবে ডিজাইন করা এক জোড়া ওয়্যারলেস ইয়ারবাডস এখন আর বিলাসিতা নয়, বরং প্রয়োজনীয়তা। রিয়েলমি সম্প্রতি বাংলাদেশের বাজারে দুটি এআইওটি পণ্য নিয়ে এসেছে – রিয়েলমি বাডস এয়ার ২ এবং বাডস এয়ার ২ নিও। উভয় ইয়ারবাডস-এ রয়েছে অ্যাক্টিভ নয়েজ ক্যান্সেলেশনসহ দুর্দান্ত সব ফিচার।

রিয়েলমি বাডস এয়ার ২ 
চমৎকার সাউন্ড + নয়েস ক্যান্সল্যাশন সুবিধা

নির্বিঘ্নে কাজ করার জন্য প্রয়োজন প্রশান্ত পরিবেশ। যখন বাইরে প্রচণ্ড শব্দ হয় কিংবা কর্মক্ষেত্রে তখন নয়েজ ক্যান্সেলেশন মোড খুবই প্রয়োজনীয় একটি ফিচার। রিয়েলমি বাডস এয়ার ২-এর আর ২ চিপের সাহায্যে ২৫ ডেসিবল অবধি সক্রিয় শব্দ, বিমান, পাতাল রেল ও অন্যান্য পরিবহণ দ্বারা উৎপন্ন স্বল্প-ফ্রিকোয়েন্সির শব্দ ফিল্টার করতে সক্ষম। ব্যবহারকারীরা এখন অপ্রয়োজনীয় শব্দ ক্যান্সেল করে দিয়ে উপভোগ করতে পারবেন গান শোনা, কথা বলা। এএনসি নয়েস ক্যান্সেলিং প্রযুক্তির সাহায্যে রিয়েলমি বাডস এয়ার ২-তে ডাবল মাইক্রোফোন কথা বলার সময় আশেপাশের শব্দ কমিয়ে দেয় এবং বাইরে থাকাকালীন কল গ্রহণ করা আরও সহজ করে তোলে।

বাডস এয়ার ২-এ ব্যবহৃত ডায়মন্ড গ্রেড কার্বন ডায়াফ্রাম, মিউজিক স্টুডিও স্ট্যান্ডার্ডের সাউন্ড উত্পাদন করে। উচ্চ মানের অডিও, বেইজ বুস্ট এবং বেস উন্নতকরণ সমাধান থাকার কারণে এই বাডস দুর্দান্ত অভিজ্ঞতা নিশ্চিত করতে পারে। এছাড়া বাডস এয়ার ২-তে ওপেন-আপ অটো কানেকশন, গুগল ফাস্ট পেয়ার, স্মার্ট ওয়ার সনাক্তকরণ এবং ইন্টেলিজেন্ট টাচ কন্ট্রোলের মতো অনেকগুলো স্মার্ট ফিচার আছে যেসব ব্যবহারকারীর অভিজ্ঞতা বাড়িয়ে তোলে।

লাইটওয়েট এবং পোর্টেবল ডিজাইনের সাথে আছে লো লেটেন্সি সুবিধা

রিয়েলমি বাডস এয়ার ২-তে গেম মোডকে আপগ্রেড করার জন্য লেটেন্সি ৮৮ মিলিসেকেন্ড পর্যন্ত নামিয়ে আনা হয়েছে। এর অর্থ হলো, আপনি যখন রিয়েলমি বাডস এয়ার ২ ব্যবহার করে গেইম খেলবেন তখন সাউন্ড সিঙ্কিং সমস্যা আপনার পারফরমেন্সের পথে আর বাধা হয়ে উঠবে না। তবে এই সুবিধা উপভোগ করতে ব্যবহারকারীকে অবশ্যই রিয়েলমি লিঙ্ক অ্যাপে গেম মোডটি চালু করতে হবে, যা আপনার নিজস্ব পছন্দ অনুসারে কাস্টমাইজ করা যাবে।

অনন্য দুইটি রঙ স্প্লাইসিং ডিজাইনের মাধ্যমে মিশ্রিত করে রিয়েলমি বাডস এয়ার ২ এর জন্য এমন একটি নকশা তৈরি করেছে যা যে কারও দৃষ্টি আকর্ষণ করবে সহজেই। বাডসের কালো এবং সাদা এই রঙগুলো স্ট্রিট স্টাইল দ্বারা অনুপ্রাণিত। ক্লোজার ব্ল্যাক রঙটি ম্যাট প্রক্রিয়ায় তৈরি যা ইয়ার বাডসকে সুরক্ষিত রাখে এবং ইলেক্ট্রোপ্লেটেড হওয়ার কারণে ইয়ারবাডের রডগুলো সবসময়ই চকচক করবে।

প্রতিটি ইয়ারবাডের ওজন মাত্র ৪.১ গ্রাম, যা এ৪ সাইজের এক টুকরো কাগজের ওজনের চেয়েও কম। এমন হালকা ওজন কানের জন্য আরামদায়ক অনুভূতি তৈরি করে এবং সঠিক ফিটিং ও বিভিন্ন রকমের সাইজে সহজলভ্য এই ইয়ারবাডসগুলো খুবই সহনীয় অভিজ্ঞতা তৈরি করতে সক্ষম।

দীর্ঘ প্লেব্যাক সময়

শক্তিশালী আর২ চিপ এবং বড় ব্যাটারি থাকার কারণে এই ইয়ারবাডসে ২৫ ঘণ্টা প্লেব্যাক সময় পাওয়া যায়। একবারের জন্য চার্জ করলে এই ইয়ারবাডস দিয়ে ৫ ঘণ্টা পর্যন্ত সীমাহীন মিউজিক উপভোগ করা সম্ভব। মাত্র ১০ মিনিটের চার্জিং ব্যবহারকারীদের ১২০ মিনিটের প্লেব্যাক সময় দেবে। ইয়ারবাডসগুলো ১০০ শতাংশ চার্জ হতে কেবল ১ ঘন্টা সময় নেয়। পাশাপাশি, রিয়েলমি বাডস এয়ার ২ আইপিএক্স ফাইভ স্প্ল্যাশ র‍্যাসিস্ট্যান্ট।

রিয়েলমি বাডস এয়ার ২ এর বাজারমূল্য মাত্র ৪,৯৯৯ টাকা।

বাডস এয়ার ২ নিও

নয়েস ক্যান্সল্যাশন সুবিধা + সুপার লো লেটেন্সি

ফিড-ফরোয়ার্ড মাইক্রোফোন এবং ২৫ ডেসিবল অবধি শব্দ দূর করার ক্ষমতা, রিয়েলমি বাডস এয়ার ২ নিও ব্যবহারকারীদের জন্য সক্রিয় এবং নিষ্ক্রিয় শব্দ-মুক্ত অভিজ্ঞতা নিশ্চিত করে। এমনকি অ্যাক্টিভ নয়েজ ক্যান্সেলেশন মোড অন থাকা অবস্থায় বিমান এবং অন্যান্য পরিবহণ দ্বারা তৈরি শব্দও আপনার কাছে পৌঁছাবে না। এই ইয়ারবাডস লেটেন্সি ৮৮ এমএস পর্যন্ত নামিয়ে আনতে পারে, যার ফলে ব্যবহারকারীর গেমিং অভিজ্ঞতা হবে আরও উপভোগ্য কারণ শব্দ এবং চিত্রের মধ্যে সমন্বয়হীনতার অভাবে গেমিং বাধাগ্রস্ত হবে না। রিয়েলমি লিংক অ্যাপে গেম মোডটি চালু করলেই আপনি এই অভিজ্ঞতা নিতে পারবেন।

ভবিষ্যত দ্বারা অনুপ্রাণিত ডিজাইন + ২৮ ঘন্টা দীর্ঘ প্লেব্যাক

বাডস এয়ার ২ নিও একটিভ ব্ল্যাক এবং কাম গ্রে এই দুটি রঙে পাওয়া যাচ্ছে। বাডসের ‘গ্লিমিং মিরর ডিজাইন’ বিভিন্ন রঙ প্রতিফলন করার মাধ্যমে একটি নান্দনিক প্রভাব তৈরি করে। মাত্র ৪.৫ গ্রাম ওজন হওয়ার কারণে এই বাডসগুলো খুব হালকা এবং নিখুঁত এয়ার ক্যানাল থাকার কারণে কানে দিলে খুব আরামদায়ক অনুভূতি তৈরি হবে।

রিয়েলমি বাডস এয়ার ২ নিও ব্যবহারকারীরা ২৮ ঘণ্টা দীর্ঘ প্লেব্যাক সময় পাবেন। মাত্র ১০ মিনিট চার্জ দিলে ব্যবহারকারীরা আবার প্রায় ১৮০ মিনিটের জন্য বাডস এয়ার ২ নিও ব্যবহার করতে পারবেন। ১০০ শতাংশ চার্জ হতে এটি মাত্র ১.৫ ঘণ্টা সময় নেয়। ১০ মিমি বেস বুস্ট ড্রাইভারের সাহায্যে নিও দুর্দান্ত সাউন্ড কোয়ালিটি নিশ্চিত করে।

অন্যান্য স্মার্ট ফিচার

বাডস এয়ার ২ নিও-তে দারুণ সব স্মার্ট ফিচার রয়েছে যা একজন ব্যবহারকারীর অভিজ্ঞতাকে আরও উপভোগ্য করে তুলে। ডুয়াল মাইক নয়েস ক্যান্সলেশন আপনাকে কোনও প্রকার ব্যাঘাত ছাড়াই ফোনের অপর প্রান্তে থাকা ব্যক্তির সাথে কথা বলতে সহায়তা করে এবং অপর প্রান্তের ব্যক্তিও স্পষ্টভাবে আপনার কথা শুনতে পারবেন। তাছাড়া চার্জিং কেস খুললে ‘ওপেন-আপ অটো কানেকশনের’ মাধ্যমে এই স্মার্ট ডিভাইসটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে আপনার ডিভাইসে সংযুক্ত হয়ে যাবে। ইন্টেলিজেন্ট টাচ কন্ট্রোল ফাংশনের সাহায্যে আপনি মিউজিক চালু ও বন্ধ করা, কল গ্রহণ ও কেটে দেয়ার মতো বিভিন্ন ফাংশন খুব অনায়েসে সম্পূর্ণ করতে পারবেন। রিয়েলমি বাডস এয়ার ২ নিও আইপিএক্স ফাইভ স্প্ল্যাশ র‍্যাসিট্যান্ট।

রিয়েলমি বাডস এয়ার ২ নিও এর বাজারমূল্য মাত্র ৩,৯৯৯ টাকা।

যারা নিরন্তর যোগাযোগের প্রয়োজনীয়তা এবং মিউজিক কোনও প্রকার ঝামেলা ছাড়াই উপভোগ করতে চান তাদের জন্য দুর্দান্ত দুইটি স্মার্ট ডিভাইস হতে যাচ্ছে রিয়েলমি বাডস এয়ার ২ এবং বাডস এয়ার ২ নিও।