বাগেরহাট শহরের বেকারির কারখানায় আগুন লেগে অগ্নিদগ্ধ হয়ে কর্মচারির মৃত্যু

42
Social Share

মাসুম হাওলাদার বাগেরহাট: বাগেরহাট শহরের একটি বেকারির কারখানায় অগ্নিদগ্ধ হয়ে আজিম শেখ (১৬) নামে এক কর্মচারির মৃত্যু হয়েছে। শনিবার রাত দশটার দিকে শহরের কচুয়াপট্টি এলাকায় রমেশ সাহার মালিকানাধীন সুমন বেকারির কারখানায় অগ্নিকান্ডে ওই কর্মচারির মৃত্যু হয়। অগ্নিকান্ডে সুমন বেকারির বিপুল পরিমান জ্বালানী পুড়ে ভষ্মিভূত হয়ে যায়। পুলিশ নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা যাওয়া আজিম শেখ বাগেরহাট সদর উপজেলার কোন্ডলা গ্রামের এমদাদ শেখের ছেলে।

নিহত আজিমের মা মাফিয়া বেগম বলেন, অভাবের তারণায় তিন বছর আগে সন্তানকে কাজ করতে দিয়েছিলামেআজ আগুনে পুড়ে মারা গেল। আমি আমার সন্তানের মুখটা দেখতে পারলম না।

বেকারির কারখানার শ্রমিক অন্য এক শ্রমিক মোঃ রুবেল বলেন, সন্ধ্যার সময় এফতারি করে এবং রাতের খাবার খেয়ে আজিম দোতলায় ঘুমাতে যায়। আমরা বাড়িতে চলে যাই। পরে শুনলাম আগুন লেগেছি। এখন শুনলাম মারা গেছে।

বাগেরহাট ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের উপ-সহকারি পরিচালক গোলাম সরোয়ার বলেন, ফ্যাক্টরীর দোতলায় কাঠের গুড়ির রুমের পাশে একটি মটর রয়েছে। সেখানে শর্ট সার্কিটের মাধ্যমে এই অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। আমরা প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি বেকারির মালিকের হয়ত দুই থেকে তিন লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

বাগেরহাট অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. সাফিন মাহমুদ বলেন, বাগেরহাট শহরের কচুয়াপট্টি এলাকায় রমেশ সাহার মালিকানাধীন সুমন বেকারির কারখানায় আগুন লাগে। মুহুর্তের মধ্যে আগুনের লেহিহান শিখা চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ে। পরে ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশসহ স্থানীয় লোকজন এসে প্রায় দুই ঘন্টা চেষ্টার পর আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আসে। আগুন নেভানোর পর বেকারির ভেতর থেকে আজিম নামে নামে এক কর্মচারির অগ্নিদগ্ধ মরদেহ উদ্ধার করা হয়। মরদেহটির ময়না তদন্তের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।#