বাংলার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক, রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করলে ভুল হবে না: অমিত শাহ

Social Share

নয়াদিল্লি: সম্প্রতি বিজেপির নবান্ন চলো অভিযানে ধুন্ধুমার কাণ্ড বাধে। বিক্ষোভরত বিজেপি কর্মী–সমর্থকদের রুখতে কাঁদানে গ্যাসের সেল ফাটায় পুলিশ। পাশাপাশি, পশ্চিমবঙ্গের ইতিহাসে প্রথমবার মিছিল ছত্রভঙ্গ করতে জলকামানে রঙ মিশ্রিত জল ছোঁড়ে পুলিশ। তবে সবকিছুকে ছাপিয়ে সামনে আসে একটি বিষয়। সেটি হল- শিখ যুবকের মাথার পাগড়ি খুলে নেয় পুলিশ। যা নিয়ে বিস্তর জল ঘোলা হয় রাজনৈতিক মহলে।

এবার পশ্চিমবঙ্গের আইনশৃঙ্খলা ব্যবস্থা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। শনিবার তিনি বলেন, পশ্চিমবঙ্গের আইনশৃঙ্খলা ব্যবস্থা সম্পূর্ণ ভেঙে পড়েছে। তাই পশ্চিমবঙ্গে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করলে ভুল হবে না।

রাজ্যের বর্তমান শাসকদল তৃণমূলের তীব্র সমালোচনা করে অমিত শাহ বলেন, বাংলায় আইনশৃঙ্খলা ব্যবস্থা বিধ্বস্ত। আমফানের ত্রাণের টাকা যাচ্ছে-তাই ভাবে নয়-ছয় করা হয়েছে। কেন্দ্র থেকে পাঠানো খাদ্যশস্য নিয়েও দুর্নীতি হয়েছে। করোনা মোকাবিলায় যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি মমতা সরকারের তরফে। দুর্নীতির সীমা ছাড়িয়েছে। আইনশৃঙ্খলার ভেঙে পড়েছে। বিনা বাধায় অনুপ্রবেশ চলছে। বাংলার সমস্ত জেলায় বোমা বানানোর কারখানা রয়েছে। সত্যিই পরিস্থিতি উদ্বেগজনক।

দলীয় নেতাকর্মীদের উপর হামলা ও সভা-সমাবেশে প্রশাসনের বাধা দেওয়া প্রসঙ্গে অমিত শাহ বলেন, গণতন্ত্রের জন্য সব থেকে চিন্তার কথা হল বিরোধী নেতা ও কর্মীদের উপর মামলা ও তাদের খুন করা হচ্ছে। ভারতের অন্য কোনও রাজ্যে এমনটা দেখা যায় না। তিনি জানান, একসময় কেরলে হতো, এখন সেখানে পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে।

অমিত শাহ বলেন, ২০২১ বিধানসভা ভোটে আমরা কোমর বেঁধে লড়ব। বাংলায় পরিবর্তন হবেই। নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে বিজেপি সরকার তৈরি হবে। তবে রাজ্যে কি বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী হবেন সে ব্যাপারে তিনি বলেন, সে পরে দেখা যাবে। বাংলার মানুষ তৃণমূলকে হঠাতে চায়। সেটাই আসল কথা।