বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের জন্য এটা বিরাট সুযোগ : মাশরাফি

ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক লিগ মানে শুধু চার-ছক্কা আর টাকার খেলা নয়; বিভিন্ন দেশের ক্রিকেটারদের মিলনমেলা। যেমন বিপিএলের এবারের আসরে খুব সাধারণ দেশি খেলোয়াড় থেকে শুরু করে ক্রিস গেইল, এবিডি ভিলিয়ার্স, রবি বোপারা, রাইলি রুশো, আন্দ্রে রাসেল, অ্যালেক্স হেলসদের মতো বিশ্বসেরা তারকারা আছেন। রংপুর রাইডার্স অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা এই সুযোটাই কাজে লাগাতে বললেন তরুণ ক্রিকেটারদের। তিনি বলেছেন, তরুণদের শেখাতে গেইল-ভিলিয়ার্সদের কোনো আপত্তি নেই।

মঙ্গলবার খুলনা টাইটান্সের বিপক্ষে ম্যাচ জয়ের পর সংবাদ সম্মেলনে ম্যাশ বলেছেন, ‘বড় বড় তারকারা ড্রেসিং রুমে অনেক বেশি সহজাত। কিন্তু একটা কথা বলি, কেউ যদি কোনো বড় তারকার কাছ থেকে কিছু জানতে বা শিখতে না চায়, ওরা তো আর নিজে থেকে কিছু বলবে না। আমাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য ওদের কাছ থেকে কিছু শেখা-জানা। এবি ডি ভিলিয়ার্সের মতো খেলোয়াড় আছে ড্রেসিং রুমে।’

শুধু রংপুর রাইডার্সের ক্রিকেটাররাই যে শিখতে পারবেন এমনটা নয়; ক্যাপ্টেন ম্যাশ তাদের দরজা উন্মুক্ত করে দিয়েছেন সবার জন্যই. ‘কেবল আমাদের দলের খেলোয়াড়েরাই নয়; যদি অন্য দলের খেলোয়াড়েরাও কিছু শিখতে চায়, জানতে চায়, ওরা কিন্তু প্রস্তুত হয়েই আছে।’

কিন্তু বড় প্রশ্ন হলো বাংলাদেশি তরুণ ক্রিকেটারদের মাঝে কি শেখার আগ্রহ আছে? তারা কী শিখতে চায় বা চাইবে? জবাবে ম্যাশ বলেন, ‘এটা তো ব্যক্তির ওপর নির্ভর করে। আমাদের ড্রেসিং রুমের অনেকেই কথা বলেছে। ওদের সঙ্গে আমার মনে হয় আরও বেশি সময় পার করা উচিত।’

উদাহরণ টেনে মাশরাফি বলেন, ‘যেমন ডেভিড ওয়ার্নারের সঙ্গে সাব্বির অনেক কথা বলেছে বলে শুনেছি। আমিও মাঠে দেখেছি সে সাব্বিরকে অনেক সাহায্য করছে। এটা তো বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের জন্য বিরাট সুযোগ। এসব ক্রিকেটাররা এমন তো নয় যে কেবল টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সফল। এখানে অনেক খেলোয়াড় আছে যারা সারা দুনিয়াতেই ভালো খেলে। ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টি, টেস্ট সব সংস্করণেই।’