বর্ণ্যঢ্য আয়োজনে মুক্তিযুদ্ধের সাবসেক্টর কমান্ডার,গবেষক ও ভিনিউজের প্রধান সম্পাদক এ এস এম সামছুল আরেফিনের জন্মদিন উৎযাপিত

103
Social Share

বর্ণ্যঢ্য আয়োজনে মুক্তিযুদ্ধের সাবসেক্টর কমান্ডার,গবেষক ও ভিনিউজের প্রধান সম্পাদক এ এস এম সামছুল আরেফিনের জন্মদিন উৎযাপিত

ভিনিউজ –

আজ উৎসবমুখর পরিবেশে মুক্তিযুদ্ধের সাবসেক্টর কমান্ডার, মুক্তিযুদ্ধ ও নির্বাচন নিয়ে গবেষক , বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন ফর রিজন্যাল ষ্টাডিসের চেয়ারম্যান , অন লাইন দৈনিক ভিনিউজের প্রধান সম্পাদক এ এস এম সামছুল আরেফিনের জন্মদিন উৎযাপিত হয়েছে । ভিনিউজ ও বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন ফর রিজন্যাল ষ্টাডিসের উদ্যাগে আয়োজিত জন্মদিন উৎসবে কার্যালয়ে আজ দুপুরে তার সাথে কেক কেটে ও ফুলেল শুভেচ্ছা দিয়ে জন্মদিনের উৎসবের সুচনা করা হয়।

রাজশাহী আ্ওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য ওয়াদুদ দারা,জাসদের সাধারণ সম্পাদক ও সংসদ সদস্য শিরিন আক্তার, সাবেক সংসদ সদস্য ও ভিনিউজের চেয়ারম্যান হারুন আর রশিদ, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ কমিটির সদস্য ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব মনিরুজ্জামান মনির, ডেপুটি এ্যাটনী জেনারেল এস এম ফজলুল হক , , স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় নেতা মাহাবুবুর রহমান হেলাল , অতিরিক্ত সচীব সৈয়দ বেলাল হোসেন , প্রকৌশলী পুলক কান্তি বড়ুয়া, ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি হাবিবুর রহমান, প্রজন্ম ৭১ সভাপতি আজিজুর রহমান, তিতাসের সাবেক এমডি আব্দুল আজিজ খান ,যুব মহিলা লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মেহের নাজ আক্তার নাহিদ, আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের সভাপতি হুমায়ুন কবীর , বাংলাদেশ অন লাইন মিডিয়া এসোসিয়েমনের সভাপতি ও ফাউন্ডেশনের ট্রেজারার জয়ন্ত আচার্য, আওয়ামী সাংস্কৃতি উপ কমিটির সদস্য ফাহাদ হোসেন প্রমিত,জিহাদুল ইসলাম, তুষার উপাধ্যায় , সাবেক ছাত্রনেতা সোহেল আহমেদ প্রমুথ ফুলেল শুভেচ্ছা তুলে দেন ।

এছাড়া আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব উল আলম হানিফ , জাহাঙ্গীর কবীর নানক, স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন সমবায় মন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য, ঝিনাইদহ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কনক কান্তি দাস , সাংসদ ইকবাল হোসেন সবুজ, তানভির শাকিল জয় নহ বিশিষ্ট জনেরা তাকে শুভেচ্ছা জানায় ।



উল্লেখ্য এ এস এম সামছুল আরেফিন ১৯৫১ সালে খুলনা জেলার পাইকগাছায় এদিন জন্ম গ্রহণ করেন। কলেজ জীবনে তিনি ছাত্রলীগের সক্রিয় কর্মী ছিলেন। ১৯৬৯ সালে তিনি পাকিস্তান সেনাবাহিনীতে যোগ দান করেন। সেনাবাহিনীতে প্রশিক্ষনকালীর সময়েই পশ্চিম পাকিস্তান থেকে পালিয়ে এসে মুক্তিযুদ্ধে যোগ দেন। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে খুলনার সাবসেক্টর কমান্ডার হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮১ সালে তিনি সেনাবাহিনী থেকে অবসর গ্রহণ করেন। মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে গবেষণার কাজে আত্মনিয়োগ করেন। তার উল্লেখ যোগ্য গ্রন্থ হল মুক্তিযুদ্ধের প্রেক্ষাপটে ব্যাক্তির অবস্থান (১৯৯৫) . জিয়া মঞ্জুর হত্যাকান্ড (১৯৯৮ ). রাজাকার ও দালাল অভিযোগে গ্রেফতারকৃতদের তালিকা(১৯৯৯), মুক্তিযুদ্ধে পুলিশের ভুমিকা (২০০০), মুক্তিযুদ্ধে জয়পুরহাট (২০০১), বাংলাদেশ ডকুমেন্ট চারখন্ড, এ হ্যান্ড বুক অফ ইন্ডিয়া ইলেকশন এ্যান্ড গর্ভারনেন্স (১৯৪৭-২০১৪) ।
তিনি বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের সাথে দীর্ঘদিন জড়িয়ে থেকে দেশের প্রগতিশীল ও গণতান্ত্রিক আন্দোলনে অগ্রনী ভূমিকা পালন করছেন্। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় নতুন প্রজন্মকে উজ্জীবিত করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার আলোকে অসাম্প্রদায়িক ও উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মানে তার চলছে নিরন্তন পখ চলা ।