বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও স্পিকারের শোক

Social Share

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য ও সিলেট সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। শোক জানিয়েছেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীও।

সোমবার (১৫ জুন) এক শোকবার্তায় রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘প্রথম নির্বাচিত মেয়র হিসেবে সিলেটের উন্নয়নে বদর উদ্দিন আহমদ কামরান যে অবদান রেখেছেন সেজন্য মানুষ তাকে সবসময় মনে রাখবে। তার মৃত্যুতে দেশ একজন নিবেদিতপ্রাণ নেতা হারালো।’ রাষ্ট্রপতি বদর উদ্দিন আহমেদ কামরানের রুহের মাগফিরাত কামনা করেন ও তার পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

এক শোক বিবৃতিতে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘স্বীয় কর্মের মাধ্যমে আওয়ামী লীগ নেতা কামরান গণমানুষের হৃদয়ে বেঁচে থাকবেন।’ তিনি মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বদর উদ্দিন আহমদ কামরান-এর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। শোক প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়া এমপি, সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী এমপি, চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী এমপি। শোক ও দুঃখপ্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি।

আরও শোক প্রকাশ করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন।

উল্লেখ্য, করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায়  রবিবার (১৪ জুন ২০২০) দিবাগত রাত পৌনে ৩টার দিকে রাজধানীর সম্মিলিতি সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) ইন্তেকাল করেন বদর উদ্দিন আহমদ কামরান (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৯ বছর। সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রথম নির্বাচিত মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান দুই মেয়াদে মেয়র নির্বাচিত হয়ে ২০০৩ সাল থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন।

গত ৫ জুন ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে সাবেক মেয়র কামরানের করোনা শনাক্ত হয়। পরদিন ৬ জুন সকালে সিলেট শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) ভর্তি করা হয় তাকে।

বদরউদ্দিন আহমদ কামরান আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি টানা প্রায় ২০ বছর সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন।