ফ্রান্সে বেশির ভাগ ফল-সবজি প্লাস্টিকে তোলা নিষেধ

87
ফ্রান্সে
Social Share

ফ্রান্সে বেশির ভাগ ফল ও সবজি প্যাকেজিংয়ের ক্ষেত্রে প্লাস্টিকের ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

আলজাজিরার ওই প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, এই নিষেধাজ্ঞাটি গতকাল স্থানীয় সময় শনিবার থেকে কার্যকর হয়েছে। ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁর সরকার বলেছে যে বিশ্বব্যাপী দূষণ আরো খারাপের দিকে গেছে। একবার ব্যবহারের মতো প্লাস্টিক পর্যায়ক্রমে বন্ধ করার আহ্বানও জানানো হয়েছে।

নতুন আইনে গাছসহ রসুন, গাজর, টমেটো, আলু, আপেল, নাশপাতি এবং আরো প্রায় ৩০টি ফল ও সবজি প্লাস্টিকে ব্যাগে ভরে বিক্রি করা যাবে না। এর পরিবর্তে অন্যান্য পুনর্ব্যবহারযোগ্য উপকরণে সেগুলো আবৃত করতে হবে।

তবে প্লাস্টিকের ব্যবহার একেবারে বন্ধ করা হয়নি। ধীরে ধীরে সামনের বছর একেবারে প্লাস্টিক নিষিদ্ধের কথা ভাবছে ফ্রান্স। নতুন নিয়মে বলা হয়েছে, ফাস্ট ফুডের রেস্তোরাঁগুলোকে আর শিশুদের বিনা মূল্যে প্লাস্টিকের খেলনা দেওয়ার অনুমতি দেওয়া হবে না।

………………………………………………………………………………………………………..

নতুন আইনে গাছসহ রসুন, গাজর, টমেটো, আলু, আপেল, নাশপাতি এবং আরো প্রায় ৩০টি ফল ও সবজি প্লাস্টিকে ব্যাগে ভরে বিক্রি করা যাবে না। এর পরিবর্তে অন্যান্য পুনর্ব্যবহারযোগ্য উপকরণে সেগুলো আবৃত করতে হবে।

তবে প্লাস্টিকের ব্যবহার একেবারে বন্ধ করা হয়নি। ধীরে ধীরে সামনের বছর একেবারে প্লাস্টিক নিষিদ্ধের কথা ভাবছে ফ্রান্স। নতুন নিয়মে বলা হয়েছে, ফাস্ট ফুডের রেস্তোরাঁগুলোকে আর শিশুদের বিনা মূল্যে প্লাস্টিকের খেলনা দেওয়ার অনুমতি দেওয়া হবে না।

ফ্রান্সে বেশির ভাগ ফল ও সবজি প্যাকেজিংয়ের ক্ষেত্রে প্লাস্টিকের ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

আলজাজিরার ওই প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, এই নিষেধাজ্ঞাটি গতকাল স্থানীয় সময় শনিবার থেকে কার্যকর হয়েছে। ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁর সরকার বলেছে যে বিশ্বব্যাপী দূষণ আরো খারাপের দিকে গেছে। একবার ব্যবহারের মতো প্লাস্টিক পর্যায়ক্রমে বন্ধ করার আহ্বানও জানানো হয়েছে।

নতুন আইনে গাছসহ রসুন, গাজর, টমেটো, আলু, আপেল, নাশপাতি এবং আরো প্রায় ৩০টি ফল ও সবজি প্লাস্টিকে ব্যাগে ভরে বিক্রি করা যাবে না। এর পরিবর্তে অন্যান্য পুনর্ব্যবহারযোগ্য উপকরণে সেগুলো আবৃত করতে হবে।

তবে প্লাস্টিকের ব্যবহার একেবারে বন্ধ করা হয়নি। ধীরে ধীরে সামনের বছর একেবারে প্লাস্টিক নিষিদ্ধের কথা ভাবছে ফ্রান্স। নতুন নিয়মে বলা হয়েছে, ফাস্ট ফুডের রেস্তোরাঁগুলোকে আর শিশুদের বিনা মূল্যে প্লাস্টিকের খেলনা দেওয়ার অনুমতি দেওয়া হবে না।