ফুকুশিমার ১০ লাখ টন ‘পরিশোধিত পানি’ সাগরে ফেলতে যাচ্ছে জাপান

66
Social Share

২০১১ সালের ১১ মার্চ প্রচণ্ড ভূমিকম্প হয়৷ রিখটার স্কেলে ৯ মাত্রার সেই ভূমিকম্পের কারণে শুরু হয় সুনামি ৷ এতে মারাত্মক ক্ষতি হয় ফুকুশিমার পারমাণবিক কেন্দ্রটির৷ সে সময় পারমাণবিক চুল্লি ছিদ্র হয়ে চারপাশে তেজস্ক্রিয়তা ছড়িয়ে পড়ে৷

তবে পার্শ্ববর্তী দেশ ও স্থানীয় মৎস্যজীবীদের বিরোধিতা সত্ত্বেও ফুকুশিমা পারমাণবিক কেন্দ্র থেকে ১০ লাখ টনের বেশি ‘পরিশোধিত পানি’ সাগরে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাপান।

জাপান সরকার বলছে, ‘পারমাণবিক কেন্দ্রের ওইসব পানি সাগরে ফেলাটা নিরাপদ। এই পানি থেকে সব ধরনের ক্ষতিকর উপাদান সরিয়ে ফেলার পরেই পানি সাগরে ফেলা হবে।’ আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থা (আইএইএ) জাপানের এই সিদ্ধান্তকে সমর্থন দিয়ে বলছে, ‘বিশ্বের অন্য দেশে পারমাণবিক কেন্দ্রের বর্জ্যজল নিষ্কাশনের মতোই এটি।’

এদিকে, পরিবেশবাদী সংগঠন গ্রিনপিস বলেছে, ‘ফুকুশিমা দাইচি পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে দূষিত পানি সমুদ্রে ছেড়ে দেওয়া হলে মানব ডিএনএ ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার শঙ্কা অনেক বেশি। দূষিত পানিতে রয়েছে কার্বন এবং নানা রকম তেজস্ক্রিয় উপাদান।’