ফিলিস্তিনের পশ্চিমতীরে দখলদারিত্ব আরও ৬৫ শতাংশ বাড়িয়েছে ইসরাইল

43
Social Share

ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীর অঞ্চল নিয়ন্ত্রণ করতে জোরালো দখল চালাচ্ছে ইসরাইল। ২০০৯ সাল থেকে বাড়িঘর উচ্ছেদ করে ফিলিস্তিনিদের ভিটেমাটি দখল করার সহিংসতা চলতি বছর আরও ৬৫ শতাংশ বেড়েছে।

বুধবার (৩১ মার্চ) বার্ষিক এক প্রতিবেদনর বিবৃতিতে মার্কিন প্রশাসন বলেছে, ‘ইসরাইল যেভাবে পশ্চিম তীর নিয়ন্ত্রণ করছে তা প্রকৃতপক্ষে দখলদারিত্বই।’

সম্প্রতি প্রকাশিত জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক সংস্থা কো-অর্ডিনেশন অব হিউম্যানিটারিয়ান অ্যাফেয়ারস আন দ্য প্যালেস্টাইন টেরিটরিসের (ওসিএইচএ) এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ফিলিস্তিনের জেরুজালেম ও পশ্চিম তীরে বেপরোয়া আগ্রাসন ও দখলদারিত্ব চালাচ্ছে ইসরাইল।

ফিলিস্তিনিদের ৪৫তম ভূমি দিবস ছিল ৩০ মার্চ। ফিলিস্তিনিরা ১৯৭৬ সাল থেকে ৩০ মার্চকে ভূমি দিবস হিসাবে পালন করে আসছে। এদিনই বিভিন্ন দেশের মানবাধিকার ইস্যুতে বার্ষিক প্রতিবেদন প্রকাশ করে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। প্রতিবেদনে পশ্চিম তীরের সাম্প্রতিক পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে এই ‘দখলদারিত্ব’ শব্দটি ব্যবহার করা হয়েছে। এক সংবাদ সম্মেলনে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বলেন, ‘এটা মার্কিন সরকারের দীর্ঘদিনের অবস্থান। অর্থাৎ বহু দশক ধরে দল-মত নির্বিশেষে পূববর্তী সরকারগুলো এ অবস্থান বজায় রেখেছে।’

কিন্তু ইসরাইলপন্থি ট্রাম্পের আমলে অত্যন্ত রূঢ়ভাবে বার্ষিক মানবাধিকার প্রতিবেদনে ‘ইসরাইল ও অধিকৃত ভূ-খণ্ডগুলোর পরিবর্তে লেখা হয়েছে ইসরাইল, পশ্চিম তীর ও গাজা। ক্ষমতায় আসার পর বৈশ্বিক মানবাধিকার নিয়ে বাইডেন প্রশাসনের প্রথম প্রতিবেদনটিতেও একই পদ্ধতি অনুসরণ করা হয়েছে। কিন্তু তারা যে ভাষা প্রয়োগ করেছে তার দ্বারা কোনো পক্ষ অবলম্বন করা হয়নি।