‘প্রধানমন্ত্রীকে দিয়ে টিকার প্রয়োগ শুরু হলে জনগণ আগ্রহী হবে’

44
Social Share

করোনাভাইরাসের প্রথম টিকা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেওয়া উচিত বলে মনে করেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। প্রধানমন্ত্রীকে দিয়ে টিকার প্রয়োগ শুরু হলে এ ব্যাপারে জনগণ আগ্রহী হবে বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

শুক্রবার (২২ জানুয়ারি) করোনা টিকার সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা নিয়ে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘কোনো ইনভেস্টমেন্ট ছাড়াই বিনা টেন্ডারে করোনার টিকা আমদানির সুযোগ দিয়ে একটি বেসরকারী কম্পানিকে অর্থনৈতিক সুবিধা দিচ্ছে সরকার। ওই কম্পানিকে সুবিধা দিতেই দুই ডলারের টিকা জনগণের কাছে বিক্রি করা হবে ৫ ডলারে।’

তিনি আরো বলেন, যতদিন সরকারিভাবে ভ্যাকসিন দেয়া শেষ না হবে, ততোদিন বেসরকারিভাবে টিকা আমদানির সুযোগ দেয়া ঠিক হবে না। এতে টিকার দাম বেড়ে যাবে, নকল ভেজাল ভ্যাকসিন চলে আসবে।

বেসরকারিভাবে ভ্যাকসিন আমদানি বন্ধে প্রয়োজনে আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানান তিনি।

এর আগে ২০ জানুয়ারি করোনার প্রথম টিকাটা প্রধানমন্ত্রীর নেওয়া উচিত বলে গণমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন তিনি। ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘টিকার ক্ষেত্রে সরকার সবচেয়ে বড় ভুলটা হচ্ছে, পয়লা টিকাটা নেয়া উচিত প্রধানমন্ত্রীর। পাবলিকলি টেলিভিশনের সামনে টিকা উনি নিলে লোকের আস্থা জন্মাবে। পাশাপাশি প্রত্যেক মন্ত্রীর জেলা শহরে গিয়ে সবার আগে টিকা নেয়া উচিত। তাহলে লোকের আস্থা জন্মাবে এবং তাদের বুঝিয়ে বলা যাবে।’

ইতোমধ্যে ঢাকায় এসে পৌঁছেছে করোনাভাইরাসের ২০ লাখ ডোজ টিকা। ১৬৭টি বক্সে ভারত সরকারের উপহারের টিকাবাহী এয়ার ইন্ডিয়ার বিশেষ ফ্লাইট বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) বেলা ১১টা ২০ মিনিটে রাজধানীর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে।