প্রথম সুযোগেই ডাবল সেঞ্চুরি; মায়াঙ্কের ব্যাটে রেকর্ডের ছড়াছড়ি

দেশের মাঠে প্রথমবার টেস্ট খেলতে নেমেই একাধিক রেকর্ডে নাম লিখিয়েছেন ভারতের ওপেনার মায়াঙ্ক আগরওয়াল। বৃহস্পতিবার বিশাখাপত্তনমে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় দিনে ডাবল সেঞ্চুরি করেছেন মায়াঙ্ক।  ৩৭১ বলে ২৩ বাউন্ডারি আর ৬ ওভার বাউন্ডারিতে করেছেন ২১৫ রান। যা ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের তালিকায় তিন নম্বরে। তার পাশে যে নামটি আছে তা অনেক দামী- সুনিল গাভাস্কার।

এটাই ঘরের মাঠে ২৮ বছর বয়সী মায়াঙ্কের প্রথম টেস্ট। এর আগে অস্ট্রেলিয়া, ওয়েস্ট ইন্ডিজে টেস্ট খেলেছেন তিনি। ক্যারিয়ারের পঞ্চম টেস্ট খেলতে নেমে ম্যাচের দ্বিতীয় দিনে ৮ নম্বর ইনিংসে টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরির দেখা পান মায়াঙ্ক। তারপর সেটাকে ডাবল সেঞ্চুরিতে পরিণত করেন। এর আগে করুণ নায়ার তৃতীয় টেস্ট ইনিংসে ডাবল সেঞ্চুরির ইতিহাস গড়েছিলেন। বিনোদ কাম্বলির টেস্টে ডাবল সেঞ্চুরি করতে লেগেছিল ৮ইনিংস। এই দুজনের পরেই আছেন সুনীল গাভাস্কার আর মায়াঙ্ক। তাদের লেগেছে ৮ ইনিংস।

ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের মধ্যে প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরিকে ডাবল সেঞ্চুরিতে নিয়ে যাওয়ার কৃতিত্ব রয়েছে এর আগে তিনজনের। ১৯৬৫ সালে দিলীপ সারদেশাই নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথমবার এটা করেছিন। ১৯৯৩ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বিনোদ কাম্বলি, ২০১৬ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে করুণ নায়ারও তা করেন। মায়াঙ্ক হলেন চতুর্থ ভারতীয় ক্রিকেটার যিনি এই রেকর্ডে নাম লিখিয়েছেন।

ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের মধ্যে বিরাট কোহলি, বীরেন্দ্র শেবাগ ও শচীন টেন্ডুলকারের টেস্টে মোট ৬টি করে ডাবল সেঞ্চুরি আছে। এরপর আছেন রাহুল দ্রাবিড় (৫), সুনীল গাভাস্কার (৪) এবং চেতেশ্বর পূজারা (৩)। সর্বশেষ ২০০৯ সালের ডিসেম্বরে কোনো ভারতীয় ওপেনার টেস্টে ডাবল সেঞ্চুরি করেছিলেন। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২৯৩ রানের সেই দুর্দান্ত ইনিংসটি এসেছিল বীরেন্দ্র শেবাগের ব্যাট থেকে। তারপর মায়াঙ্কই প্রথম ভারতীয় ওপেনার হিসেবে টেস্টে ডাবল সেঞ্চুরি করে ফেললেন।