প্রথমবারের মতো ৮ বিভাগীয় শহরে ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা শুরু আজ

64
Social Share

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক সম্মান শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষা আজ শুক্রবার (১ অক্টোবর) শুরু হচ্ছে। প্রথম দিন বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত ‘ক’ ইউনিটের পরীক্ষা। এ বছর ভর্তির জন্য আসনপ্রতি ৪৫ জন শিক্ষার্থী অংশ নেবেন।

পরীক্ষা শুরু হবে সকাল ১১টায়। চলবে বেলা ১২টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত।

এবার প্রথমবারের মতো আট বিভাগীয় শহরে হবে ভর্তি পরীক্ষা। ঢাকা বিভাগের পরীক্ষার্থীদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে, চট্টগ্রাম বিভাগের পরীক্ষা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে, রাজশাহী বিভাগের পরীক্ষা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে, খুলনা বিভাগের পরীক্ষা খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে, সিলেট বিভাগের পরীক্ষা শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে, রংপুর বিভাগের পরীক্ষা বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে, বরিশাল বিভাগের পরীক্ষা বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে এবং ময়মনসিংহ বিভাগের শিক্ষার্থীদের ভর্তি পরীক্ষা বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হবে।

গত বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের আব্দুল মতিন ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে সংবাদ সম্মেলনে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান জানিয়েছিলেন, ১ অক্টোবর বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত (ক ইউনিট) পরীক্ষা দিয়ে শুরু হবে এবারের ভর্তি পরীক্ষা। ২ অক্টোবর কলা অনুষদ (খ ইউনিট), ২২ অক্টোবর ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ (গ ইউনিট), ২৩ অক্টোবর সামাজিকবিজ্ঞান (ঘ ইউনিট) এবং ৯ অক্টোবর চারুকলা অনুষদের পরীক্ষা (চ ইউনিট) অনুষ্ঠিত হবে।

এ বছর ক ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় প্রতি আসনের জন্য লড়বেন ৬৪ জন। ‘খ’ ইউনিটে আসনপ্রতি ২০ জন, ‘গ’ ইউনিটে ২১ জন, ‘ঘ’ ইউনিটে ৭৩ জন এবং ‘চ’ ইউনিটে ভর্তির জন্য প্রতি আসনে ১১৪ জন লড়বেন। একটি আসনের জন্য ভর্তি পরীক্ষায় গড়ে ৪৫ জন শিক্ষার্থী প্রতিযোগিতা করবেন। এ বছর ‘ক’ ইউনিটের এক হাজার ৮১৫টি আসনের জন্য এক লাখ ১৭ হাজার ৯৫৭ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। ‘খ’ ইউনিটের দুই হাজার ৩৭৮টি আসনের বিপরীতে ৪৭ হাজার ৬৩২ জন, ‘গ’ ইউনিটে এক হাজার ২৫০টি আসনের বিপরীতে ২৭ হাজার ৩৭৪ জন, ‘ঘ’ ইউনিটে এক হাজার ৫৭০টি আসনের বিপরীতে এক লাখ ১৫ হাজার ৮৮১ জন এবং ‘চ’ ইউনিটে ১৩৫টি আসনের বিপরীতে ১৫ হাজার ৪৯৬ জন শিক্ষার্থী ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেবেন।

ভর্তি কমিটির সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা সম্পন্নের জন্য এরই মধ্যে সব প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে পরীক্ষা নিতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো তাঁদেরকে ডিন, প্রক্টরিয়াল টিম ও একাডেমিক কাউন্সিল সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন। অন্যবার ভর্তি পরীক্ষাগুলো ১০টায় শুরু হলেও এবার বিশেষ পরস্থিতিতে সকাল ১১টায় পরীক্ষা শুরু হবে, যাতে শিক্ষার্থীরা যথাসময়ে পরীক্ষা কেন্দ্রে উপস্থিত হতে পারেন।

পরীক্ষার মোট সময় দেড় ঘণ্টা। প্রতি ইউনিটে লিখিত ও এমসিকিউ দুই অংশে পরীক্ষা নেওয়া হবে। এর মধ্যে ‘চ’ ইউনিট বাদে অন্য চারটি ইউনিটে লিখিত অংশে ৪০ ও এমসিকিউ অংশে ৬০ নম্বর থাকবে। ‘চ’ ইউনিটের ক্ষেত্রে সাধারণ জ্ঞান অংশে থাকবে ৪০ এবং অংকনে থাকবে ৬০ নম্বর।’

উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান বলেন, পূর্ববতী ভর্তি পরীক্ষাগুলোতে যেকোনো ধরনের অসদুপায়, ডিজিটাল জালিয়াতি মূলোৎপাটনে আমরা কার্যকর উদ্যোগ নিয়েছি। যারা ডিজিটাল জালিয়াতির চক্র, মূল হোতা হিসেবে ভর্তি পরীক্ষাকে প্রশ্নবিদ্ধ করত, তাদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় নেওয়া হয়েছে। এবারও বিশ্ববিদ্যালয় জালিয়াতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্সে থাকবে।