‘পাপিয়াদের সামনে এনে নিজেদের বড় অপকর্ম ঢাকছে সরকার’

Social Share

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, জনগণের দৃষ্টি অন্যদিকে সরিয়ে দিতে পাপিয়া, সম্রাটদের সামনে ঠেলে দিয়ে নিজেদের আরো বড় অপকর্ম ঢাকছে সরকার।

আজ মঙ্গলবার সকালে ডেমোক্রেটিক মুভমেন্ট আয়োজিত জাতীয় প্রেস ক্লাবে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

ড. মোশাররফ বলেন, আজকে আপনারা দেখেন, যখনই কোনো গভীর সংকট সরকারের সামনে, তখনই তাদের লোকজন যেসব অপকর্ম কিছু করছে মুখরোচক- ওইটাকে প্রকাশ করে দিয়ে জনগণের দৃষ্টিকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে চায়, ভিন্ন খাতে নিয়ে যেতে চায়।

তিনি বলেন, যে সময়ে ক্যাসিনো অভিযান হয়, সেই সময়েও সরকারের একটা ত্রাহি ত্রাহি অবস্থা ছিল। বর্তমানেও সরকার সকল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে আজকে একটা খাদের কিনারায় গিয়েছে বলে আমি মনে করি। তা থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্যই সরকার এসব জিনিসকে সামনে এনে জনগণের দৃষ্টিকে অন্যদিকে ফিরিয়ে দিতে চায়।

বাংলাদেশে এখন হাইব্রিড গণতন্ত্র উল্লেখ করে তিনি বলেন, দেশে এখন জণগনের মতামতের ভিত্তিতে প্রতিনিধি নির্বাচিত হচ্ছে না। সরকার প্রধান এবং নির্বাচন কমিশন দেশের নির্বাচন ব্যবস্থা সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস করে দিয়েছে। ক্ষমতাকে কুক্ষিগত করতে সরকার প্রধান নির্বাচন ব্যবস্থা ধ্বংস করে দিয়েছে।

তিনি আরো বলেন, বৃহস্পতিবার বেগম জিয়াকে উচ্চ আদালত থেকে জামিন দেয়া না হলে পেশাগত কাজে যারা জড়িত তাদেরকে জনগণের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে। বিচারপ্রতি হিসেবে সরকারের তুয়াক্কা না করে নিজেদের পেশাগত দায়িত্বরপালন করবেন। বেগম জিয়া মুক্তি না পেলে গণতন্ত্র মুক্তি পাবে না।

মোশাররফ বলেন, দেশের অর্থনীতিও এখন ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে। ব্যাংকগুলোর টাকা লুটপাট করা হয়েছে। সমাজের সকল অঙ্গে আজ পঁচন ধরেছে। ক্যাসিনো, চাঁদাবাজি, সন্ত্রাসবাদ সমাজকে ধ্বংস করা হচ্ছে। সরকারি দলের নেত্রী পাপিয়ারা সরকারের ছত্রছায়ায় থেকে অপকর্ম করে যাচ্ছে। আর অপকর্মে ধরা পড়লেই দল থেকে বহিষ্কার করা হয়।

তিনি বলেন, বিচার বিভাগকে সরকার তাদের সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে নিয়ে গেছে। এজন্য, বেগম জিয়াকে সরকারের ফরমায়েশি রায়ে সাজা ভোগ করতে হচ্ছে। উচ্চ আদালতে বেগম জিয়াকে জামিন পাওয়ার ন্যায্য দাবি থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে সরকারের ইশারায়। গণতন্ত্র যাতে দেশে পুনপ্রতিষ্ঠিত হতে না পারে সেজন্য বেগম জিয়াকে কারাগারে রাখা হয়েছে।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি শাহাদাত হোসেন সেলিমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দিন আহমেদ, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, তাঁতী দলের যুগ্ম আহবায়ক ড. কাজী মনিরুজ্জামান মনির প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।