পাকিস্তান যেমন একাত্তরের কৃতকর্মের জন্য ক্ষমা চায়নি, বিএনপি তেমনি তাদের কৃতকর্মের জন্য জনগণের কাছে ক্ষমা চায়নি – মাহাবুব উল আলম হানিফ।

Social Share

ভিনিউজ –

আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেছেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় একাত্তরে পাকিস্তান বাঙালির উপর যে নির্যাতন চালিয়েছে তার জন্য আজও ক্ষমা চায়নি। তেমনি বিএনপি-জামাত এদেশের জনগণের উপর নির্যাতন চালিয়েছে তার জন্য তারা জনগণের কাছে ক্ষমা চায়নি। তিনি আরো বলেন, ২০০১ থেকে ২০০৬ সালে তাদের শাসনামলে এদেশ একটি ব্যর্থ জঙ্গি রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছিল। আজ আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার  ৭৩তম জন্মদিন উপলক্ষে সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে  মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্ম ঐক্যজোট   উদ্যোগে আয়োজিত  আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ডাক্তার কামরুল হাসান খান, আওয়ামী লীগের সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, ইকবাল হোসেন সবুজ এমপি, মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি, সাবেক এমপি ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল ওয়াদুদ দারা, রাজশাহী আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল ওয়াদুদ দারা, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ছাত্রলীগের সাবেক নেতা মনিরুজ্জামান মনির। ব্যারিস্টার জাকির আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সঞ্চালন করেন সাংবাদিক জয়ন্ত আচার্য।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, বিএনপি নেতাদের কথা শুনে মনে হয় তারা উন্নয়ন দেখেন না। কারো চোখের ছানি পড়লে সে তো দেখতে পাবেনা। সারা বিশ্ব দেখছে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ দ্রুত এগিয়ে চলছে। এদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল।

সুজিত রায় নন্দী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে দেশ থাকলে দেশ কখনোই মুক্তিযুদ্ধের চেতনা থেকে সরে যাবে না।আজ বাংলাদেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ।  ৯৭ভাগ এলাকায় বিদ্যুৎ পৌঁছে গিয়েছে।

আমিনুল ইসলাম আমিন বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ বাংলাদেশ উন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা পেয়েছে। সবকিছুই সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারণে।