পাকিস্তানের ৮৭ শতাংশ মানুষ মনে করে দেশ ভুল পথে চলছে

87
পাকিস্তানের ৮৭ শতাংশ
Social Share

পাকিস্তানের ৮৭ শতাংশ মানুষ মনে করে দেশটি ভুল পথে চলছে। সম্প্রতি একটি জরিপে এ তথ্য উঠে এসেছে। প্যারিসভিত্তিক বহুজাতিক বাজার গবেষণা এবং পরামর্শক সংস্থা আইপিএসওএস ওই জরিপ চালিয়েছে। বুধবার (২৪ নভেম্বর) জিও টিভির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

জরিপে প্রায় এক হাজার একশ মানুষ অংশগ্রহণ করেছে। এই জরিপ চালানো হয়েছে ২০২১ সালের নভেম্বরে অর্থাৎ চলতি মাসেই।

আইপিএসওএসের কনজিউমার কনফিডেন্স ইনডেক্সের চতুর্থ ত্রৈমাসিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, মুদ্রাস্ফীতিকে দেশের সবচেয়ে বড় সমস্যা মনে করেন ৪৩ শতাংশ।

জরিপে অংশ নেওয়াদের মধ্যে ১৪ শতাংশ বলছেন, বেকার সমস্যা পকিস্তানের একটি গুরুত্বপূর্ণ সমস্যা। তবে ১২ শতাংশ মনে করেন, পাকিস্তানের উল্লেখযোগ্য সমস্যা হচ্ছে দারিদ্র্য।

অংশগ্রহণকারীরা জানিয়েছেন, পাকিস্তানের অর্থনৈতিক অবস্থা খুবই দুর্বল। মাত্র ৫ শতাংশ জানিয়েছেন অর্থনীতি ঠিক আছে। ২৬ শতাংশ মনে করেন মুদ্রাস্ফীতি হচ্ছে দেশটির সবচেয়ে বড় ইস্যু। কিছুদিন আগেও ১৮ শতাংশ মানুষ মনে করতেন করোনাভাইরাস একটি গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু তবে সে হার কমে এখন ৮ শতাংশে নেমেছে।

জরিপের ফলাফল অনুযায়ী, দেশটির পাঁচ শতাংশ মনে করে শুল্কের বোঝা একটি বড় সমস্যা। তাছাড়া চার শতাংশের কাছাকাছি মানুষ রুপির অবমূল্যায়ন, তিন শতাংশের মতো মানুষ বিদ্যুতের ওপর শুল্ক বৃদ্ধি, দুই শতাংশ দুর্নীতি, ঘুষ ও স্বজনপ্রীতি, দুই শতাংশ লোডশেডিং এবং এক শতাংশ মানুষ আইন প্রয়োগের ক্ষেত্রে বৈষম্যকে বড় সমস্যা বলে মনে করেন।

জরিপে অংশ নেওয়াদের মধ্যে ১৪ শতাংশ বলছেন, বেকার সমস্যা পকিস্তানের একটি গুরুত্বপূর্ণ সমস্যা। তবে ১২ শতাংশ মনে করেন, পাকিস্তানের উল্লেখযোগ্য সমস্যা হচ্ছে দারিদ্র্য।

অংশগ্রহণকারীরা জানিয়েছেন, পাকিস্তানের অর্থনৈতিক অবস্থা খুবই দুর্বল। মাত্র ৫ শতাংশ জানিয়েছেন অর্থনীতি ঠিক আছে। ২৬ শতাংশ মনে করেন মুদ্রাস্ফীতি হচ্ছে দেশটির সবচেয়ে বড় ইস্যু। কিছুদিন আগেও ১৮ শতাংশ মানুষ মনে করতেন করোনাভাইরাস একটি গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু তবে সে হার কমে এখন ৮ শতাংশে নেমেছে।

জরিপের ফলাফল অনুযায়ী, দেশটির পাঁচ শতাংশ মনে করে শুল্কের বোঝা একটি বড় সমস্যা। তাছাড়া চার শতাংশের কাছাকাছি মানুষ রুপির অবমূল্যায়ন, তিন শতাংশের মতো মানুষ বিদ্যুতের ওপর শুল্ক বৃদ্ধি, দুই শতাংশ দুর্নীতি, ঘুষ ও স্বজনপ্রীতি, দুই শতাংশ লোডশেডিং এবং এক শতাংশ মানুষ আইন প্রয়োগের ক্ষেত্রে বৈষম্যকে বড় সমস্যা বলে মনে করেন। পাকিস্তানের ৮৭ শতাংশ