‘পাকিস্তানকে বিশ্বাস করি না, তাই ওসামা-অভিযানের কথা জানাইনি’, বললেন প্রাক্তন সিআইএ প্রধান

সিচুয়েশন রুম থেকে ওসামা-অভিযান দেখছেন বারাক ওবামা, হিলারি ক্লিন্টন এবং অন্যান্য আধিকারিকরা। —ফাইল চিত্র।
Social Share

সন্ত্রাসে মদত দেওয়া নিয়ে আন্তর্জাতিক মহলে তাদের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্নের শেষ নেই। তার মধ্যেই পাকিস্তানের অস্বস্তি বাড়ালেন প্রাক্তন মার্কিন প্রতিরক্ষা সচিব লিয়ন পানেত্তা। জানিয়ে দিলেন, পাকিস্তানের উপর কোনও কালেই ভরসা ছিল না তাঁদের। তাই অ্যাবোটাবাদে ওসামা বিন লাদেন লুকিয়ে রয়েছেন এবং সে সম্পর্কে তাঁরা ওয়াকিবহাল, সে কথা ইসলামাবাদের কাছে গোপন রাখা হয়েছিল। আগে থেকে কিছু জানালে পাকিস্তান লাদেনকে সতর্ক করে দিতে পারে, সেই আশঙ্কা থেকেই অ্যাবোটাবাদ অভিযানের কথা গোপন রাখা হয় বলে জানিয়েছেন তিনি।

২০১১ সালের ২ মে পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদের একটি বাড়িতে মার্কিন নৌবাহিনীর ‘সিল’ কম্যান্ডোদের হাতে মৃত্যু হয় তৎকালীন আল কায়দা প্রধান ওসামা বিন লাদেনের। সেই অভিযান নিয়ে সম্প্রতি একটি ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে মুখ খোলেন লিয়ন পানেত্তা। একসময় মার্কিন গুপ্তচর সংস্থা সিআইএ-র প্রধানও ছিলেন তিনি। লিয়ন বলেন, ‘‘পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদে ওসামা বিন লাদেনের অবস্থান জানতে পেরেছিলাম আমরা। অ্যাবোটাবাদ পাক গুপ্তচর নেটওয়ার্কের কেন্দ্রস্থল হিসেবে পরিচিত। তাই অ্যাবোটাবাদের ওই বাড়িতে ওসামার থাকার কথা কেউ জানতেন না, তা বিশ্বাস করি না আমি।’’

লিয়নের যুক্তি, এলাকার বাকি সমস্ত বাড়ির চেয়ে ওই বাড়িটি ছিল আয়তনে তিন গুণ বড়। এক দিকে ১৮ ফুট উঁচু দেওয়াল ছিল। অন্য দিকে ছিল ১২ ফুট উঁচু দেওয়াল। তার উপর আবার কাঁটাতারের বেড়াও ছিল। তা দেখে সন্দেহ হওয়াটাই স্বাভাবিক ছিল। তাই পাকিস্তান এ নিয়ে কিছু জানত না, এমনটা হতে পারে না।

পাকিস্তানের উপর যে তাঁদের একেবারেই বিশ্বাস ছিল না সে কথাও স্পষ্ট জানিয়ে দেন লিয়ন। তিনি বলেন, ‘‘পাকিস্তানকে নিয়ে উদ্বেগ ছিলই। একেবারেই ওদের বিশ্বাস করতে পারছিলাম না আমরা। তাই ওসামার অবস্থান বা অ্যাবোটাবাদ অভিযান নিয়ে কিচ্ছু জানাইনি ওদের।’’ বিষয়টি গোপনা রাখা হয়েছিল বলেই, অভিযান সফল হয় বলেও মন্তব্য করেন লিয়ন।