পরিবহন ধর্মঘট প্রত্যাহারের আহ্বান সেতুমন্ত্রীর

পরিবহন নেতাদের ধর্মঘট প্রত্যাহার করার আহ্বান জানিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সড়ক পরিবহন আইন করা হয়েছে জনগণের স্বার্থে, সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনার জন্য। কাউকে শাস্তি দেওয়ার জন্য নয়। সড়কে শৃঙ্খলা রক্ষার স্বার্থে তিনি সবাইকে নতুন আইন মেনে চলার আহ্বান জানান।

আজ মঙ্গলবার বিকেলে গাজীপুরের শহীদ বরকত স্টেডিয়ামে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, উন্নয়নের কোনো দাম নেই যদি মানুষের সাথে ভালো ব্যবহার না করেন। মানুষকে ভালোবাসতে হবে, ত্যাগী কর্মীদের মূল্যায়ন করতে হবে। পেঁয়াজের মূল্য নিয়ন্ত্রণে আনা হচ্ছে, শিগগির দাম কমবে। কাউকে আর সিন্ডিকেড করতে দেওয়া হবে না। প্রধানমন্ত্রীর অ্যাকশন শুরু হয়েছে, আপনারা সাবধান হয়ে যান। চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি, মাদক ব্যবসা, জমি দখল, দুর্নীতি এসব চলবে না। দুর্নীতি ও দুর্বৃত্তায়নের চক্র ভেঙে দেওয়া হবে। আমাদের এতো উন্নয়ন, এতো ত্যাগ, এত সততা এসবের সোনালি ফসল ঘরে তুলতে হবে।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সুবিধাবাদী দল নয়, আদর্শবাদী দল। আপনারা কোন্দল করবেন না, ঘরের মধ্যে ঘর করবেন না, মশারির মধ্যে মশারি টানাবেন না। দল ভারি করার জন্য খারাপ লোকদের দলেও পদে আনবেন না। এরা বসন্তের কোকিল। দুর্দিনে ৫০০০ ভোল্টের ভাল্ব জ্বালিয়ে এতের খুঁজে পাবেন না।

মন্ত্রী আরো বলেন, ভারতের সঙ্গে কোনো চুক্তি করা হয়নি, সমঝোতা স্মারক করা হয়েছে। আমরা ভারতের আনুগত্য চাই না, বন্ধুত্ব চাই। জনগণ ক্ষমতার উৎস, বিদেশি কেউ আমাদের ক্ষমতায় বসিয়ে দিবে না। বিএনপির বেলা শেষ। তাদের আর কিছু বলা ও করার নেই। তারা কোনো কিছু বলার আগেই প্রধানমন্ত্রী অ্যাকশন নেন। তারা এখন ইস্যু তৈরির চেষ্টা করছে। তাদের কোনো ইস্যু তৈরি করতে দেওয়া হবে না।

পেয়াঁজের মূল্য বৃদ্ধি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিদেশ থেকে দ্রুত পেয়াঁজ আমদানীর কথা শুনে দাম কমতে শুরু করছে। এখন লবণ নিয়ে নানা কথা শুনছি। লবণের কোনো সংকট নেই। এসব নিয়ে সিন্ডিকেট সহ্য করা হবে না।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপির সভাপতিত্বে ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সিটি মেয়র মো. জাহাঙ্গীর আলমের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবীর নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুর রহমান, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, কেন্দ্রীয় নেতা সুজিত রায় নন্দী, আমিনুল ইসলাম, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল এমপি, সিমিন হোসেন রিমি এমপি, মেহের আফরোজ চুমকি এমপি, ইকবাল হোসেন সবুজ এমপি অ্যাডভোকেট আজমতউল্লাহ খান, ডাকসুর সাবেক ভিপি গাজীপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আকতারউজ্জামান প্রমুখ।