পদত্যাগ করছেন মেয়র আরিফুলসহ বিএনপির ৩ নেতা

সিলেট জেলা ও মহানগর যুবদলের কমিটি গঠন নিয়ে তুলকালাম কাণ্ডের মধ্যে স্বেচ্ছায় পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীসহ বিএনপির তিন নেতা। বাকি দুজন হলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-ক্ষুদ্রঋণ বিষয়ক সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রাজ্জাক ও ডাক্তার শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী।

আজ শনিবার দলীয় মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের কাছে পদত্যাগপত্র পাঠাবেন। পরবর্তীতে সভায় উপস্থিত থাকা বিএনপি ও অন্যান্য অঙ্গ সংগঠনের নেতারাও গণপদত্যাগের সিদ্ধান্ত নেন।

সূত্র জানিয়েছে, বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দসহ একাংশের নেতারা সিলেট জেলা ও মহানগর যুবদলের কমিটি গঠন নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। গতকাল শুক্রবার রাতে নগরীর কুমারপাড়া এলাকায় সভা করেন বিক্ষুদ্ধ নেতাকর্মীরা। ওই সভায় বিএনপি ও যুবদলের অবমূল্যায়িত নেতাকর্মীরা দল থেকে পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিলে তাদের থামিয়ে দেন কেন্দ্রীয় নেতারা। এক পর্যায়ে রাজ্জাক, আরিফুল ও শাহরিয়ার নিজেরাই দলের কেন্দ্রীয় পদ থেকে পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নেন। এ সময় তাদের সঙ্গে থাকা অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরাও পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নেন।

এ ব্যপারে সভায় উপস্থিত থাকা সিলেট জেলা যুবদলের সদ্য সাবেক কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ইকবাল বাহার চৌধুরী বলেন, শুক্রবার সিলেট জেলা ও মহানগর যুবদলের যে কমিটি গঠন করা হয়েছে এতে দীর্ঘদিন ধরে যুবদলের রাজনীতি করা কেউ ঠাঁই পাননি। ঠাঁই পেয়েছেন বিশেষ একজন কেন্দ্রীয় নেতার অনুসারীরা। তাই বিষয়টি নিয়ে তারা রাতেই সিলেটে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে তুলে ধরেন। এর প্রেক্ষিতে বিএনপির তিন কেন্দ্রীয় নেতা আব্দুর রাজ্জাক, আরিফুল হক চৌধুরী ও ডা. শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী দলের পদ থেকে পদত্যাগ করার সিদ্ধান্ত নেন।