ন্যায়-নীতির পাঠাগার ও সততা-আদর্শের বাতিঘর

405
Social Share

রাজশাহী প্রতিনিধি: সম্পুর্ণরুপে নিরহংকার,নির্লোভ ও কাশফুলের মতোই নরম নিবিড় মনের ও নির্মল প্রানের,সবুজ বাংলার কাদা মাটিতে গড়া একজন সৎ,নিষ্ঠাবান খাঁটি মানুষ আলহাজ্ব মোঃ আব্দুল ওয়াদুদ দারা ভাই।

যিনি সেই জন্মলগ্ন থেকেই বঙ্গবন্ধুর মূল নীতি ও আদর্শ তাঁর বুকে লালন-পালন ও ধারণ করে চলেছেন এবং দেশরত্ন মাননীয় প্রধানমত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সকল আদেশ,উপদেশ অবনত মস্তকে মনে-প্রাণে মেনে জনহিতকর ও রাষ্টিয় সকল উন্নয়ন মূলক কাজ নিষ্ঠা ও সততার সঙ্গে তিনি করে চলেছেন অদ্যবধি।

মহান স্বাধীনতার রণাঙ্গনে একজন শহীদ পরিবারের সন্তান।সততা,আদর্শ ও ন্যায়নীতি যার সম্বল তাঁকে কোন কিছু দিয়েই দাবায়ে রাখা যায় না।
প্রিয নেতা জননেতা দারা ভাইকেও কোন মিথ্যাচার, অসততা,অপপ্রচার,ষড়যন্ত্র ও কোন অন্যায়-অবিচার দাবায়ে রাখতে পারে নাই।

ন্যায়, নীতি,আদর্শ ও সততা নিয়ে চলতে গিয়ে তিনি অনেক ঘাত প্রতিঘাত ও হাজারও সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন তবুও তিনি অন্যায়ের কাছে তিল পরিমান মাথানত করেন নাই। মানবতার কল্যানে,দেশের স্বার্থে নীতিতে থেকেছেন অটল।
দল ও সংগঠনের স্বার্থে তিনি তাঁর প্রাণের শত্রুকেও তাঁর বুকে টেনে নিতে এক সেকেন্ডও ভাবেন নাই, ভাবেনও না।
দেশ,জাতী,জনগণ,ধর্ম,বর্ণ নির্বিশেষে এবং দলীয় সংগঠন ও মানবতার স্বার্থে নিজের জীবনকেও উৎস্বর্গ করে দিতে সদা সর্বদা তিনি প্রস্তুত রয়েছেন।

তাঁর কাছে ছোট,বড় কোন ভেদাভেদ নাই। সবাইকে তিনি সমান দৃষ্টিতে দেখেন,সমান ভালবাসেন এবং সবাইকে তিনি হাস্যজ্জল মুখে বুকে টেনে নিয়ে স্বযত্নে আগলে রাখেন ও সকলের দুঃখ,বেদনা,চাওয়া-পাওয়া ও সমস্যার কথা আন্তরিকতার সাথে শুনে তা সমাধানের লক্ষ্যে তাঁর বলিষ্ট হাত বাড়িয়ে দেন।

সমগ্র রাজশাহীবাসী সকলেই জানেন এবং মনে-প্রাণে মানেন তিনি ন্যায়-নীতির পাঠাগার ও সততা-আদর্শের বাতিঘর।

তিনি তাঁর সততা,নিষ্ঠা,ত্যাগ,প্রাজ্ঞ,বিজ্ঞ ও তিক্ষ্ণ বিচক্ষনতার ফল স্বরুপ বর্তমানে রাজশাহী জেলা আওয়ামীলীগ বিপ্লবী সাধারণ সম্পাদক হতে পেরেছেন।
শুধুমাত্র তাই নয়, তিনি বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে টকশো আলোচনায় রাজনৈতিক,অর্থনৈতি ও সামাজিক বিশ্লেষন ও দেশ বিদেশের চাঞ্চল্যকর ঘটনা প্রবাহের উপর গঠনমূলক বক্তব্য প্রদানের মাধ্যমে তিনি প্রথম শ্রেনীর জাতীয় পর্যায়ের প্রিয় নেতা জননেতায় পরিনত হয়েছেন।
তাঁর প্রাজ্ঞ,বিজ্ঞ বিচক্ষণ ও সুনিপুন সাংগঠনিক নেতৃত্বে সমগ্র রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগ আজ ঐক্যবদ্ধ।

এমন মহান,মহৎ,কর্মিবন্ধব,জনবান্ধব,উন্নয়নকারী ও জনহিতকর,জনদরদী,দেশপ্রেমিক জননন্দিত জননেতা জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন বঞ্চিত হলে সর্বস্তরের নেতা,কর্মি,ভোটার ও সাধারণ জনগণের প্রাণ কাঁদবে এটাই স্বাভাবিক
এবং আগামী জাতীয় নির্বাচনে তাঁকে যদি মনোনয়ন না দেওয়া হয় তাহলে পুঠিয়া দুর্গাপুর সহ সমগ্র রাজশাহী জেলা আওয়ামীলীগের সর্বস্তরের নেতা,কর্মি,ভোটার ও সাধারণ জনগণ হতাশায় নিমজ্জিত হয়ে ভেঙ্গে পড়বে এবং দল ও সংগঠনের হবে অপুরণীয় ক্ষতি।
যে ক্ষতি হয়তো আগামী ১০০ বছরেও পুরণ করা সম্ভব হবে না।।