নির্বাচন কমিশনের কাছে এটি দ্বিতীয় সুযোগ : ইশরাক

Social Share

নির্বাচন কমিশনের কাছে এটি দ্বিতীয় সুযোগ মন্তব্য করে ঢাকা সিটি দক্ষিণ করপোরেশনের বিএনপির প্রার্থী ইশরাক হোসেন বলেছেন, ৩০ জানুয়ারির নির্বাচন কেমন হয়েছে তা সবাই দেখেছে। তারপরও একজন প্রার্থী হিসেবে তাদের কাছে কি ধরনের আস্থা থাকতে পারে, প্রার্থী হিসেবে এ প্রশ্ন আমি জাতির কাছে রাখতে চাই। যেহেতু আরও একটা সুযোগ এসেছে তাদের ভুল সংশোধনের। আমি চাইব তারা সেটা করবেন।

আজ মঙ্গলবার ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিনে মনোনয়ন দাখিল শেষে কমিশনের প্রতি আস্থা আছে কি না সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে ইশরাক একথা বলেন।‌‌

ইশরাক হোসেন বলেন, দেশে গণতন্ত্র নাই, সকলে ঐক্যবদ্ধভাবে মোকাবেলা করবো। নির্বাচনি পরিবেশ কেমন তা এখন বলার মতো কিছু হয়নি। ঐকক্যবদ্ধভাবে নির্বাচন করবে বিএনপি, জনগন ঐক্যব্ধ হয়েছে জয় সুনিশ্চিত।

এর আগে বেলা পৌনে তিনটায় রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেন বিএনপির প্রার্থী ইশরাক হোসেন। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন মির্জা আব্বাস, আফরোজা আব্বাস, সাবেক মেয়র আবদুস সালাম এবং তার ভাই।

এ সময় ইশরাক বলেন, এই নির্বাচনকে ঘিরে ঢাকাবাসী ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। ক্রান্তিকাল চলছে, দেশে কোনো গণতন্ত্র নেই, ভোটের অধিকার নেই। এজন্য সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। সবাইকে নিয়ে আমরা এই পরিস্থিতি মোকাবেলা করব। নির্বাচনে আমাদের বিজয় নিশ্চিত ইনশাআল্লাহ। দেশের উন্নয়নের ধোঁয়া তোলা হয়েছে কিন্তু কোনো উন্নয়ন হয়নি বরং উন্নয়নের নামে বিদেশে টাকা পাচার করা হয়েছে। আমরা উচ্চশিক্ষিত, আমরা জানি উন্নয়ন কিভাবে করতে হয়। বিশ্বের সবচেয়ে নামীদামী বিশেষজ্ঞ এনে ঢাকাকে উন্নত করা কোনো ব্যাপারই ছিল না। গত ১২ বছরে উন্নয়নের নামে যে পরিমাণ অর্থ পাচার করা হয়েছে সে অর্থ যদি বাংলাদেশের ইকোনমিতে থাকতো তাহলে শুধু ঢাকা নয় আমি মনে করি আরও পাঁচটি মহানগরকে উন্নত শহরে রূপ দেয়া যেত। এই দেশ সত্যিকার অর্থে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নত হতো।

অতিরিক্ত লোকজন নিয়ে আসা প্রসঙ্গে ইশরাক বলেন, এটা ভুল কথা। আমার সঙ্গে মির্জা আব্বাস চাচা, আফরোজা চাচী, সাবেক মেয়র আবদুল সালাম, আমার ভাই এবং আমি এই পাঁচজন এসেছি। এর বাইরে আমাদের সঙ্গে কেউ নেই। এখানে বহু কাউন্সিলর এসেছেন। আশপাশের মানুষজন আছেন সেই দায়িত্ব আমার না।

সব শেষে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে আনতে ঢাকাবাসী এবং ঢাকাবাসীর কাছে দেশবাসীর কাছে দোয়া চান ইশরাক হোসেন।