নির্বাচনী পোস্টারে ‘খোকন সরকার’  বিজয়ী কামরুজ্জামান !

মাহফুজুর রহমান, ঝিনাইদহ প্রতিনিধি:

80
পোস্টারে
Social Share
পোস্টারে – ফুটবল প্রতিক নিয়ে ইউপি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দিতা করেন খোকন সরকার। ভোট শেষে ফলাফলে দেখা গেছে ফুটবল প্রতিক নিয়ে বিজয়ী হয়েছেন কামরুজ্জামান নামে এক প্রার্থী। খবরটি শুনতে অবাক লাগলেও ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার রাখালগাছি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে এমন আজব প্রার্থীর সন্ধান মিলেছে।
বিজয়ী কামরুজ্জামান রাখালগাছি ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের নরদহি গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে। তথ্য নিয়ে জানা গেছে, গত বছরের ২৮ নভেম্বর কালীগঞ্জ উপজেলার রাখালগাছি ইউনিয়নের নির্বাচনে কাগজ কলমে প্রতিদ্বন্দিতা করেন কামরুজ্জামান। প্রতিক বরাদ্দের পর ফুটবল মার্কা নিয়ে তিনি ‘খোকন সরকার’ নামে পোস্টার ছেপে ওয়ার্ড ব্যাপী বিতরণ করেন। নির্বাচনে ফুটবল প্রতিকে বিজয়ী হলেও রেজাল্ট সীটে খোকন সরকারের স্থলে নাম লেখা হয় কামরুজ্জামানের। নির্বাচনী কাগজপত্রে এমনকি ভোটার তালিকাও ওই ওয়ার্ডে ‘খোকন সরকার’ নামে কোন প্রার্থীর অস্তিত্ব নেই। নির্বাচন সম্পন্ন হওয়ার ৩৫দিন পর ঘটনাটি জানাজানি হয়ে পড়লে প্রতিদ্বন্দি মেম্বর প্রার্থীরা আইনগত পদক্ষেপ নিতে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কাছে উপযুক্ত তথ্য প্রমানসহ অভিযোগ দায়ের করেন। ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন-২০২১ এর পরিপত্রের ৪ নং ধারায় হ‍্যান্ডবিল, লিফলেট ও পোস্টার ব্যবহার সংক্রান্ত বিধি নিষেধের ৫ উপধারায় বলা হয়েছে “নির্বাচনী প্রচারণায় কোন প্রতিদ্বন্দি প্রার্থী নিজ ছবি ও প্রতিক ব্যাতিত অন্য কারো নাম, ছবি ও প্রতিক ব্যবহার করতে পারবে না। বিজয়ী কামরুজ্জামান ‘খোকন সরকার’ নাম ব্যবহার করে নীতিমালা ভঙ্গ করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ব্যাপারে রাখালগাছি ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডে প্রতিদ্বন্দিতাকারী প্রার্থী আবুল কাশেম কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ করে সদস্য পদ বাতিল ও শপথ গ্রহন স্থগিতের দাবী জানিয়েছেন। অভিযোগ পত্রে তিনি উল্লেখ করেছেন বিজয়ী প্রার্থী কামরুজ্জামান ‘খোকন সরকার’ নাম দিয়ে পোস্টার ছেপে ও বিতরণ করে ভোটারদের সঙ্গে প্রতারণা ও বিশ্বাস ভঙ্গ করেছেন।
বিষয়টি নিয়ে ঝিনাইদহ জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আব্দুস সালেক রোববার জানান, ভুল করে অনেক প্রার্থী তাদের ডাক নাম ব্যাবহার করে পোস্টার ছাপেন। যদিও এটা ঠিক নয়।
প্রার্থীরা যে নামে পোস্টারে প্রতিক বরাদ্দ পাবেন, সেই নামেই পোস্টার, হ্যান্ডবিল ও লিফলেট ছাপিয়ে বিতরণ করবেন। তিনি বলেন, গেজেট প্রকাশের আগে কেও অভিযোগ করলে তার প্রতিকার করা ছিল। তিনি বলেন ইতিমধ্যে গেজেট প্রকাশ হয়ে গেছে। তাছাড়া শপথ অনুষ্ঠানও ২/১ দিনের মধ্যে হবে।