নতুন করে করোনা আতঙ্কে ঘুম উড়েছে চিনের, নয়া ক্লাস্টার মিলল বেজিংয়েও

69
Social Share

নতুন করে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ল চিনের হেবেই প্রদেশে। প্রশাসন জানিয়েছে, আগের থেকে অনেক দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে নতুন করোনার ঢেউ। আতঙ্কের খবর, ভাইরাসের ক্লাস্টার নতুন করে বেজিংয়েও পাওয়া গিয়েছে। এ যেন এক বছরের বৃত্ত পূর্ণ হওয়া। গত বছর শুরু থেকে করোনা সংক্রমণ সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড়তে থাকে, ঠিক এক বছরের মাথায় ফের নতুন ঢেউ আক্রমণ করছে চিনকে।

নতুন করে সংক্রমণ শুরু হওয়ায় হেবেই প্রদেশে ৫ দিনের মধ্যে হাসপাতালে তৈরি করে ফেলল চিনা প্রশাসন। এই হাসপাতালে রয়েছে দেড় হাজার শয্যা, ৬ হাজার ৫০০টি ঘর। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে বেগ পেতে হচ্ছে। সেই কারণে আগাম তৈরি রাখা হল বহু শয্যার হাসপাতাল।

এমন দ্রুততার সঙ্গে হাসপাতাল তৈরির উদাহরণ আগেও আছে। গত বছরের গোড়াতেই যখম চিনে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে করোনার সংক্রমণ, তখন মাত্র কয়েক দিনের মধ্যে হাসপাতাল তৈরি করেছিল চিনা প্রশাসন। এ বার বেজিংয়ের দক্ষিণে হেবেই প্রদেশের ন্যানগংয়ে এই হাসপাতাল তৈরি হয়েছে। এ ছাড়া হেবেই প্রদেশের রাজধানী শিঝিয়াঝুয়াং অঞ্চলে আরও একটি ৩ হাজার শয্যার হাসপাতাল তৈরির কাজ চলছে।

২০১৯ সালে ইউহান প্রদেশে প্রথম করোনার চিহ্ন খুঁজে পায় প্রশাসন। সেই বছর ডিসেম্বর মাসের পর থেকে সংক্রমণ কমলেও মুক্ত হয়নি চিন। ন্যানগং প্রদেশে আপাতত ৬৪৫ জনের চিকিৎসা চলছে।

স্থানীয় প্রশাসন অবশ্য এই নতুন ঢেউয়ের জন্য দায় চাপাচ্ছেন বিদেশ থেকে আমদানি হওয়া বিভিন্ন দ্রব্য ও দেশে ফেরা মানুষের উপর। নাম না করে প্রশাসনিক আধিকারিকরা জানাচ্ছেন, বিদেশ থেকেই এই রোগের নতুন ঢেউ চিনে এসে প্রবেশ করেছে। নতুন করে ২৪ ঘণ্টায় ১৩০ জন করোনা আক্রান্তের সন্ধান পেয়েছে চিনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন। তার মধ্যে ৯০ জন হেবেই প্রদেশের।