দেশের মানুষ কখন জেগে উঠবে বলা মুশকিল : নজরুল

Social Share

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও ২০ দলীয় জোটের সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, আমরা গণতান্ত্রিক পন্থায় আন্দোলন-সংগ্রাম করতে চাই এবং গণতন্ত্রের পথেই আমরা গণতন্ত্রের নেত্রীকে আমাদের মাঝে ফিরিয়ে আনতে চাই। আমি বিশ্বাস করি, বাংলাদেশের গণতন্ত্রকামী মানুষের এই আকাঙ্ক্ষা অবশ্যই পূরণ হবে।

আজ রবিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ২০ দলীয় জোটের প্রতিবাদ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

নজরুল ইসলাম বলেন, যে প্রক্রিয়ায় যেভাবে খালেদা জিয়া মুক্ত হতে পারেন ২০ দলীয় জোট অতি শিগগিরই সেই প্রক্রিয়া গ্রহণ করবে। ২০ দলীয় জোট দেশনেত্রীর মুক্তির দাবিতে এককভাবে কর্মসূচি ঘোষণা দেবে।

তিনি বলেন, আমরা সবাই জানি, বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে আদালতে সরকার কোনো অভিযোগ প্রমাণ করতে পারে নাই। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘তিনি নাকি এতিমের টাকা চুরি করে খেয়েছেন’। অথচ সেই দুই কোটি ৩৩ লাখ টাকা এখন প্রায় আট কোটি টাকা হয়ে গেছে। সেখান থেকে এক পয়সাও তসরুফের প্রমাণ আদালতে হয় নাই। কিন্তু মিথ্যা কথা বলে বিচার বিভাগকে বিভ্রান্ত করা হয়েছে, বিচার বিভাগের ওপর চাপ সৃষ্টি করা হয়েছে।

তিনি বলেন, আমাদের অসংখ্য নেতাকর্মী গুম হয়ে গেছে, অনেক নেতাকর্মী এলাকাছাড়া হয়েছে। তবুও কেউ দল ত্যাগ করেননি, আন্দোলন থেকে সরে দাঁড়ায়নি।

সরকারের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে তিনি বলেন, বাংলাদেশের মানুষ কখন জেগে ওঠে বোঝা মুশকিল। অধিকারের জন্য কাউকে ছাড় দেয় না এই বীরের জাতি।

দেশের নির্বাচন ব্যবস্থার সম্পর্কে তিনি বলেন, বাংলাদেশের মানুষ এখন নির্বাচনবিমুখ। মানুষ এখন আর ভোট দিতে যায় না। জনগণের এখন আর ভোটে আস্থা নেই, এই সরকার আস্থার জায়গাটা নষ্ট করে ফেলেছে।

প্রতিবাদ সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল আবদুল হালিম, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের আমির মনজুরুল ইসলাম ভুইঁয়া, জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) মোস্তফা জামাল হায়দার, জাপা মহাসচিব মুক্তিযোদ্ধা লুৎফুর রহমান, এনপিপির ফরহাদুজ্জামান ফরহাদ প্রমুখ।