দেশকে চরম বিপদের দিকে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে : ফখরুল

Social Share

করোনাভাইরাসের বিস্তারের ব্যাপক ঝুঁকির মধ্যে সব কিছু খুলে দিয়ে সরকার দেশকে চরম বিপদের দিকে ঠেলে দিচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। আজ শনিবার সকালে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কবরে পুষ্পমাল্য অর্পণের পর তিনি এই মন্তব্য করেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, আগামীকাল থেকে সাধারণ ছুটিও থাকবে না, গণ-পরিবহন খুলে দেওয়া হবে। সরকার প্রথম থেকেই ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সমন্বয় নেই কোথাও।  সরকারের সিদ্ধান্তগুলো সম্পূর্ণভাবে অপরিপক্কই নয়, অদূরদৃষ্টি সম্পন্ন ও প্রজ্ঞাবিহীন। কোনো রকম চিন্তা ছাড়া একেবারে দায়িত্বজ্ঞানহীনভাবে এই সিদ্ধান্তগুলো নেওয়া হচ্ছে। এটা একেবারে ভুল সিদ্ধান্ত এবং এটা আরও চরম বিপদের দিকে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে দেশকে।

আজ সকাল ১১টায় জিয়ার ৩৯তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্যদের নিয়ে বিএনপি মহাসচিব শেরে বাংলা নগরে জিয়াউর রহমানের কবরে পুস্পমাল্য অর্পণ করেন। এ সময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, সেলিমা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু উপস্থিত ছিলেন।

বিএনপির তরফ থেকে জনগণের প্রতি পরামর্শ কী প্রশ্ন করা হলে বিএনপি মহাসচিব বলেন, জনসাধারণের প্রতি আমাদের পরামর্শ হচ্ছে, আপনারা নিজেরা নিরাপদ থাকুন, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন এবং ঘরে থাকুন।

মির্জা ফখরুল বলেন, দেশের মানুষ আতঙ্কিত হয়ে উঠেছে। প্রতিদিন করোনা আক্রান্তের পরিমাণ বাড়ছে, মৃত্যুর পরিমাণ বাড়ছে। বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, নির্বাচিত স্বাস্থ্য বিষয়ক টেকনিক্যাল কমিটিও পরামর্শ দিয়েছিলেন যে, এখন এই মুহূর্তে একবারে একসাথে খোলা উচিত হবে না সব কিছু। সেক্ষেত্রে সরকার তাদের কথা না শুনে সব কিছু খুলে দিয়েছে। আরও বেশি হুমকির মুখে গোটা জাতি পড়ে গেছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আজকে করোনা সঙ্কটময় মুহূর্তে জিয়াউর রহমানের কথা বার বার মনে হয়, এই ক্ষণজন্মা নেতা আজকে যদি নেতৃত্ব দিতে পারতেন তাহলে হয়ত বাংলাদেশের মানুষকে এতো কষ্ট পেতে হতো না। প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের মৃত্যুবার্ষিকীতে আমরা শপথ নিয়েছি এই দুর্দিনে জনগণের পাশে দাঁড়াবো। আমাদের পক্ষে যতটুকু সম্ভব ইতিমধ্যে মানুষের পাশে আমরা দাঁড়িয়েছি, আরো দাঁড়াবো এবং একই সঙ্গে গণতন্ত্র উদ্ধার করবো এইটাই হচ্ছে আজকের দিনের আমাদের শপথ।