দুই বাংলার শ্রোতাদের জন্য হৈমন্তী শুক্লার সাথে ডুয়েল গান নিয়ে আসছেন প্লে-ব্যাক গায়ক বিল্লাল হোসেন জুয়েল

48
Social Share

বৃদ্ধাশ্রম নিয়ে গানটি ভাইরাল হওয়ার পর ক্রিকেট খেলোয়ারদের কাছে জনপ্রিয় সেই গানটি ”সাকিব আল হাসান, সাকিব আল হাসান” ”বাংলাদেশের জান তুমি বাংলাদেশের প্রাণ, বিশ্ব সেরা অল রাউন্ডার সাকিব আল হাসান” গানটি বিশ্বে সাড়া জাগিয়েছিল। ক্রিকেট খেলা হলেই বেজে উঠতো। গানটির প্রায় ২ মিলিয়ন ভিউয়ার। মধ্যবিত্ত পরিবারের দু:খ-বেদনা নিদারুন হাহাকার নিয়ে ”বুক ফাটেতো মুখ ফোটেনা হ্দয় ভরা হাহাকার-আমরা মধ্যবিত্ত পরিবার” গানটির সারা জাগানো বাংলাদেশের প্লে-ব্যাক সিঙ্গার বিল্লাল হোসেন জুয়েল আসছেন হৈমন্তী শুক্লার সাথে ডুয়েট গান নিয়ে। করোনার কারণে রেকডিং সমস্যা হলেও গানটি রেকডিং যতটা সম্ভব শেষ করা হবে বলে জানিয়েছেন বিশ্বের বাংলা ভাষাভাষী গান প্রেমীদের অনবদ্য গায়িকা হৈমন্তী শুক্লা।
বিল্লাল হোসেন জুয়েলের কণ্ঠে বাংলাদেশের উন্নয়নের ওপর ”বেচে থাকার মানেই শুধু নিশ্বাস নেয়া নয়, পায়ের তলায় শক্ত মাটি চাই নিরাপদ আশ্রয়” গানটি খুবই পছন্দ করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাবেক রাজনৈতিক উপদেষ্টা প্রয়াত এইচ টি ইমাম।
জীবনের পাওয়া না পাওয়া, দু:খ কষ্ট এবং মধ্যবিত্তের আত্মনাদ নিয়ে ”আমরা মধ্যবিত্ত পরিবার” ৫টি লোকেশনে ২টি ক্যামেরায় চিত্রয়িত করেছিল ফুল মিউজিক ভিডিও। গানের মাধমে ম্যাসেজটি দেয়া হয়েছে সমাজের উচ্চবিত্ত শ্রেণীদের মাঝে।
”হতাশা আর বেদনা ভুলে জীবনকে নতুন রুপে সাজাও ধুলো আর পুরোনো বাঁশীটি মুছে নতুন কোন সুরে বাজাও” হৈমন্তী শুক্লার সঙ্গে ডুয়েট গানটি লিখেছেন বিল্লাল হোসেন জুয়েল, সুর করেছেন কাজী জামাল। এই গানটি বর্তমান প্রেক্ষাপটে সমাজের হতাশা গ্রস্থ মানুষের জন্য চেতনা ও প্রেরণা জাগ্রত করার একটি প্রয়াস বলে জানালেন শিল্পী বিল্লাল হোসেন জুয়েল।
২০০৪ সালে ”সেই যে বলে গেলে” শিরোনামে প্রথম এ্যালবামটি বাজারে আসার পর থেকে জুয়েলকে আর পিছন ফিরে তাকাতে হয়নি। অফার আসে বিজয় টিভির মিউজিক ডাইরেক্টর হওয়ার। সেই থেকে ২ বছর কাজ করেছেন। তার ”কিছু কথা কিছু সুর” অনুষ্ঠানটি খুবই জনপ্রীয়তা পেয়েছিল দর্শক শ্রোতাদের মাঝে। এ অনুষ্ঠানটি বাংলাদেশের আনাচে কানাচে লুকিয়ে থাকা প্রতিভাদের অংশগ্রহণে প্রচারিত হতো। চুক্তি শেষ হওয়ার পর বিজয় টিভি কর্তৃপক্ষ আর অনুষ্ঠানটি ধরে রাখেনি।
গানে গানে জেগে উঠুক মানবতাবোধ-এ স্লোগানে বিল্লাল হোসেন জুয়েল এগিয়ে যাচেছন। তিনি বলেন, হৈমন্তী শুক্লার সঙ্গে আমার ডুয়েল গানটি আশা করি এপার ওপার দুই বাংলার মানুষের কাছে জনপ্রিয়তা অর্জন করবে।