দীপাবলিতে চিনা পণ্য বয়কট করায় চিনের লোকসান ৪০ হাজার কোটি টাকা

Social Share

নয়াদিল্লি: গালওয়ান উপত্যকায় চিনের সাথে সংঘর্ষের পর দেশজুড়ে চিনা পণ্য বয়কটের হিড়িক পড়ে। বয়কট করা হয় শতাধিক চিনা অ্যাপস, টেন্ডার। তারই অংশ হিসেবে এবারের দীপাবলিতে বয়কট করা হয় চিনা পণ্য। যার ফলে চিনের লোকসান হয়েছে ৪০ হাজার কোটি টাকা।

কনফেডারেশন অফ অল ইন্ডিয়া ট্রেডার্স (CAIT) জানিয়েছে, করোনা আবহে এবারের দীপাবলিতে ৭২ হাজার কোটি টাকার কেনাবেচা হয়েছে। চিনের পণ্য বয়কট করায় চিনা রফতানিকারীদের লোকসান হয়েছে ৪০ হাজার কোটি টাকা।

কনফেডারেশন অফ অল ইন্ডিয়া ট্রেডার্স দেশের বড় বড় বাজারগুলিতে সমীক্ষা চালায়। রবিবার তাঁরা জানিয়েছে, দিল্লি, কলকাতা, মুম্বই, চেন্নাই, বেঙ্গালুরু, ভোপাল, লখনউ, আমেদাবাদ, রাঁচি, সুরাত, কোচি, জয়পুর, জম্মু, হায়দরাবাদ, নয়ডা, চণ্ডীগড় (২০টি জায়গার প্রধান বাজার) থেকে তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে।

এবারের দীপাবলিতে সবচেয়ে বেশি বিক্রি হয়েছে ভোগ্যপণ্য, উপহার সামগ্রী, মিষ্টান্ন সামগ্রী, খেলনা, বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম, ইলেকট্রনিক জিনিসপত্র, ঘড়ি, জুতো, রান্নাঘরের সরঞ্জাম, কাপড়, হস্তশিল্পের জিনিসপত্র, ঘর সাজানোর জিনিসপত্র। কনফেডারেশন অফ অল ইন্ডিয়া ট্রেডার্সের মতে, ভবিষ্যতেও চিনা পণ্য বয়কটের ধারা অব্যাহত থাকবে, তারই ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে এবারের দীপাবলি থেকে।

CAIT এক বিবৃতিতে বলেছে, দেশজুড়ে ব্যবসায়ীরা ভারতীয় পণ্য বিক্রি করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আহ্বানকে গুরুত্ব দিয়েছেন। দীপাবলিতে ভারতীয় পণ্যের বিপুল বিক্রি ভবিষ্যতে ভালো ব্যবসায়ের সম্ভাবনাকে ইঙ্গিত করে এবং ব্যবসায়ীদের মুখে কিছুটা হাসি ফিরিয়ে এনেছে। দীপাবলিতে ভারতবাসী উৎসব পণ্য বিক্রয়-ক্রয়ের ক্ষেত্রে করোনা এবং চিন উভয়কেই পরাজিত করেছে।

এই বছর চিনা পণ্য বর্জন করে ‘হিন্দুস্তানী দীপাবলি’ উদযাপন করার জন্য দেশব্যাপী সমর্থন ছিল। যা চিনকে জোরালো ধাক্কা দিয়েছে এবং ভারত চিনা যে পণ্য সম্পূর্ণ বর্জন করতে বদ্ধপরিকর তা স্পষ্ট হচ্ছে। স্থানীয় কারিগর, ভাস্করগণ, হস্তশিল্পের শ্রমিক এবং কুমোররা ভালো ব্যবসা করেছে এবারের দীপাবলিতে।