দরিদ্র দেশগুলোতে যথেষ্ট করোনা টিকা নেই: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

43
Social Share

কোভ্যাক্স কর্মসূচির মাধ্যমে করোনার টিকা পাওয়া বহু দরিদ্র দেশে টিকাদান কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার মতো যথেষ্ট টিকা নেই বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। আফ্রিকায় করোনা মহামারির তৃতীয় ঢেউ আঘাত হানছে। ঠিক এই সময় কোভ্যাক্স কর্মসূচির টিকার সংকট দেখা দিয়েছে।  করোনার টিকা মজুদ না করতে গতকাল সোমবার ধনী দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট সিরিল রামাফোসা।

তিনি বলেন, আফ্রিকা মহাদেশের চার কোটি মানুষকে এ পর্যন্ত করোনার টিকা দেওয়া সম্ভব হয়েছে, যা মহাদেশটির জনসংখ্যার মোট ২ শতাংশ। রামাফোসা বলেন, দেশটিকে টিকা তৈরির আঞ্চলিক হাব হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে কোভ্যাক্সের সঙ্গে কাজ করছে দক্ষিণ আফ্রিকা।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার জ্যেষ্ঠ উপদেষ্টা ড. ব্রুস এলওয়ার্ড বলেছেন, কোভ্যাক্সিন কর্মসূচির মাধ্যমে ১৩১টি দেশকে ৯ কোটি ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে। তবে দেশগুলোর কোনোটির কাছেই করোনাভাইরাস থেকে জনগণকে সুরক্ষা দেওয়ার মতো পর্যাপ্ত টিকা নেই। আফ্রিকার কিছু দেশে যখন সংক্রমণের তৃতীয় ঢেউ শুরু হয়েছে, তখনই টিকার এই ঘাটতি দেখা দিয়েছে। বিবিসি জানিয়েছে, বিশ্বজুড়ে করোনার টিকা পাওয়া নিশ্চিত করতে গত বছর কোভ্যাক্স গঠন করা হয়। এই উদ্যোগে দরিদ্র দেশগুলোকে টিকা কেনার ক্ষেত্রে ধনী দেশগুলোর ভর্তুকি দেওয়ার কথা।

টিকার সমবণ্টন নিশ্চিত করতে এবং দরিদ্র দেশগুলোর কাছে টিকা পৌঁছে দিতে কোভ্যাক্স কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয় গত বছর। এই কর্মসূচিতে টিকা সরবরাহ করতে ধনী দেশগুলো ইতোমধ্যে বেশ কিছু প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। কোভ্যাক্সের লক্ষ্যমাত্রা হলো, ২০২১ সালের মধ্যে দরিদ্র দেশগুলোকে করোনার টিকার ২০০ কোটি ডোজ সরবরাহ করা। কিন্তু এ পর্যন্ত সরবরাহ করা সম্ভব হয়েছে মাত্র ৯ কোটি ডোজ টিকা।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংস্থার নেতৃত্বে পরিচালিত কোভ্যাক্স প্রথমে ২০২১ সালের মধ্যে বিশ্বজুড়ে ২০০ কোটি ডোজ টিকা জোগান দেওয়ার লক্ষ্য নিয়েছে। এর অধিকাংশই দরিদ্র দেশগুলোকে দেওয়া হচ্ছে। এসব দেশের অন্তত ২০ শতাংশ মানুষকে সুরক্ষা দেওয়ার মতো পর্যাপ্ত টিকা বিতরণ করতে পারবে বলে আশা করছে কোভ্যাক্স।

সূত্র: বিবিসি।