তেল তো দূরের কথা, পাকিস্তানকে কোনো ঋণও দেবে নাে সৌদি

Social Share

মুসলিম দেশগুলোর কাছেও কোণঠাসা পাকিস্তান। ইমরান খান সরকারের উপর বেজায় চটেছে সৌদি আরব। সম্প্রতি কাশ্মীর ইস্যুতে ইসলামিক সহযোগিতা সংস্থা- ওআইসি’র ভূমিকা নিয়ে চুড়ান্ত সমালোচনা করেছে পাকিস্তান। এমনকি সংস্থা ভেঙে দেওয়ার কথাও বলে ইমরান খানের সরকার। তার জেরেই সংস্থাটি পরিচালনার দায়িত্বে থাকা সৌদি আরব স্পষ্টভাবে জানিয়েছে দিয়েছে তেল তো দূরের কথা এবার থেকে তারা পাকিস্তানকে ঋণও দেবে না।

অর্থনৈতিক সঙ্কটে জর্জরিত পাকিস্তান। এমতাবস্থায় সৌদির এমন সিদ্ধান্তে চরম চাপে ইসলামাবাদ। সৌদি আরবের কাছ থেকে ২০১৮ সালের নভেম্বরে ৬২০ কোটি ডলারের ঋণ নিয়েছিল পাকিস্তান। এর মধ্যে ৩০০ কোটি নগদ অর্থ এবং বাকি ৩২০ কোটি ডলারের তেল দেওয়ার কথা বলা হয়। সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান পাকিস্তান সফরে এসে গতবছর ফেব্রুয়ারি মাসে এই ঋণ বিষয়ক চুক্তিটি করেন।

ঋণের শর্তে বলা হয়েছিল, কোনও বছর সৌদি আরবের যদি ঋণ দিতে দেরি হয়, তা হলে তারা ইসলামাবাদকে ৩.২ লক্ষ কোটি ডলার মূল্যের তেল সরবরাহ করবে। চুক্তির মেয়াদ মাস দুই আগে শেষ হওয়া সত্ত্বেও এতদিন ওই চুক্তির নবায়ন হয়নি। ওআইসি’র ভূমিকা নিয়ে সমালোচনার জেরে বিশ্বের বৃহত্তম তেল উৎপাদন এবং রপ্তানিকারক দেশ সৌদি আরব পাকিস্তানকে আর তেল সরবরাহ করবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছে।