তিন বিলিয়ন ডলারের ‘‌প্রতিরক্ষা চুক্তি’‌ সাক্ষর হল ভারত–আমেরিকার

Social Share

স্বাক্ষরিত হল ভারত-আমেরিকা প্রতিরক্ষা চুক্তি।মঙ্গলবার, দ্বিপাক্ষিক বৈঠকের পর যৌথ বিবৃতিতে এমনটাই জানান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

ভারত সফরের দ্বিতীয় দিনে নয়াদিল্লির হায়দরাবাদ হাউসে যৌথ বিবৃতি দিয়ে ট্রাম্প বলেন, “প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে সহযোগিতা বাড়িয়ে, আজ ভারতের সঙ্গে এমএইচ-৬০ রোমিও সি-হক হেলিকপ্টার ও এএইচ-৬৪ই অ্যাপাচে হেলিকপ্টার-সহ ৩ বিলিয়ন ডলারের অত্যাধুনিক মার্কিন সামরিক সরঞ্জামের চুক্তি হয়েছে। এই যুদ্ধাস্ত্র বিশ্বে সেরা। এর ফলে দুই দেশই প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে যৌথভাবে আরও মজবুত জায়গায় পৌঁছাবে।” বহু প্রতীক্ষিত প্রতিরক্ষা চুক্তি নিয়ে কথা বলার সময় ‘ইসলামিক টেরর’ বা ‘মুসলিম মৌলবাদ’ নিয়েও যৌথভাবে লড়াইয়ের বার্তা দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। তিনি সাফ জানান, সন্ত্রাসবাদী হামলা থেকে নাগরিকদের সুরক্ষা দিতে দু’দেশই বদ্ধপরিকর। সাউথ ব্লককে আশ্বস্ত করে ট্রাম্প আরও জানান, পাকিস্তানের জমিতে আশ্রয় নেওয়া সন্ত্রাসবাদীদের উৎখাত করতে ইসলামাবাদের সঙ্গে সদর্থক প্রচেষ্টা চালাচ্ছে ওয়াশিংটন।

এদিন, ট্রাম্পের পাশে মঞ্চে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী মোদি সন্ত্রাসবাদ নিয়ে কড়া বার্তা দেন। তিনি বলেন, “ভারত ও আমেরিকা যৌথভাবে সন্ত্রাসবাদের পৃষ্ঠপোষকদের বিরুদ্ধে লড়াই চালাব। প্রতিরক্ষা, বাণিজ্য-সহ একাধিক ক্ষেত্রে দু’দেশ এক সঙ্গে কাজ করবে।”

উল্লেখ্য,  সোমবার মোতেরায় ‘নমস্তে ট্রাম্প’ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ভূয়সী প্রশংসা করে ট্রাম্প  জানিয়েছিলেন, নয়াদিল্লি চাইলে ‘এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম-সহ ‘বন্ধু’ ভারতকে নানান অত্যাধুনিক অস্ত্র সরবরাহ করবে আমেরিকা। রুশ অস্ত্রে অভ্যস্ত হলেও, চিন ও পাকিস্তানের সঙ্গে ‘টু ফ্রন্ট’ লড়াইয়ে প্রস্তুত থাকতে মার্কিন অস্ত্র চাইছে ভারত। কারণ প্রযুক্তি ও মারণ ক্ষমতার হিসেবে মার্কিন হাতিয়ারের জুড়ি মেলা ভার। তাই এদিন ২.৬ বিলিয়ন ডলার দিয়ে ২৪টি এমএইচ-৬০ রোমিও সি-হক হেলিকপ্টার ও প্রায় ৮০ কোটি ডলার মূল্যের ছ’টি এএইচ-৬৪ই অ্যাপাচে হেলিকপ্টার কিনতে আমেরিকার সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে ভারত।