তালার মুড়াগাছা গ্রামে শিশুকে নির্যাতন করার অভিযোগ

79
Social Share

বি. এম. জুলফিকার রায়হান, তালা প্রতিনিধি: পূর্ব বিরোধের জের ধরে তালার মুড়াগাছা গ্রামে ১১ বছরের এক শিশু এবং তার পরিবারকে সামাজিক ও মানষিক ভাবে হেয় প্রতিপন্ন করা সহ হয়রানী করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। অনলঅইনে কৌশলে অপপ্রচার চালিয়ে শিশুটিকে সামাজিক ভাবে সম্মানহানী করে তাকে পরিকল্পিতভাবে মানষিক ক্ষতি করা হচ্ছে বলেও অভিযোগে বলা হয়েছে। এঘটনায় মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।
উপজেলার মুড়াগাছা গ্রামের মৃত. বাশারত আলী খান’র ছেলে মো. মোস্তাফিজুর রহমান জানান, মুড়াগাছা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে খেলা করার সময় তার শিশু সন্তান (১১) এর সাথে একই বয়সের অপর এক শিশুর ঝগড়া হয়। যা তৎপরবর্তীতের শিশুরা নিজেরাই মিটিয়ে নিয়ে আবার মিলেমিশে চলা শুরু করে। কিন্তু এই বিষয়টিকে পুঁজি করে বোমাবাজ সিরাজুল পরিকল্পিতভাবে অপর শিশুর পিতাকে দিয়ে হয়রানীর চেষ্টা শুরু করে। একই সাথে সামাজিক ভাবে হেয় করার জন্য সে কৌশলে অনলাইনে মিথ্যা এবং কাল্পনিক তথ্য প্রচার করে। সেখানে ১১ বছরের শিশুটিকে হত্যার চেষ্টাকারী আখ্যায়িত করে এবং শিশুর পিতা মোস্তাফিজের বিরুদ্ধে চরম মিথ্যাচার করা হয়। ইন্টারনেটে মিথ্যা এবং হয়রানীকর তথ্য প্রচার করার পর থেকে শিশুটি মানষিক এবং সামাজিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে বলে মোস্তাফিজুর রহমান অভিযোগ করেন। তিনি আরও বলেন, এলাকার বোমাবাজ সিরাজুল আনুমানিক ১৮/২০ বছর আগে প্রতিপক্ষকে খুন করার জন্য নিজ বাড়িতে বসে বোমা তৈরি করছিল। এসময় বোমা বিস্ফোরন ঘটলে সিরাজুলের হাতের আঙ্গুল উড়ে যায়। এরপর থেকে সে নিজেকে প্রতিবন্ধী দাবী করে সামাজিক সহযোগীতা নিয়ে সে তার ব্যক্তি স্বার্থ উদ্ধার করে যাচ্ছে। এমনকি সে তার সৎ মা এবং সৎ ভাইদের নানান ভাবে হয়রানী করে যাচ্ছে। এছাড়া সিরাজুলের স্বার্থ উদ্ধারে কেউ বাঁধার সৃষ্টি করলে তাকে সে নানান ভাবে হুমকি প্রদান সহ হয়রানী করে আসছে। তবে, এসব অভিযোগ অস্বীকার করে সিরাজুল ইসলাম বলেন, থানায় অভিযোগ হয়েছিল। সেই অভিযোগের তথ্য অনলাইনে প্রকাশ করেছি।
এদিকে, কৌশলে অনলাইন এবং ফেসবুকে মিথ্যা তথ্য প্রচার এবং শিশুকে সামাজিক ও মানুষিক নির্যাতন করায় সিরাজুল ইসলামের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করার প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে বলে ভুক্তভোগী মোস্তাফিজুর রহমান জানিয়েছেন।