তথাকথিত ফতোয়াবাজদের প্রতিরোধ করা হবে : নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

11
Social Share

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি বলেছেন, তথাকথিত ফতোয়াবাজরা আবার মাঠেনেমেছে; তাদের রাজনৈতিক এজেন্ডা আছে। তাদের কথাবার্তা ও কর্মকান্ড বরদাশত করা হবেনা।
তিনি বলেন, ‘তারা বিভ্রান্তিমূলক ফতোয়া দিয়ে বাংলাদেশকে বিপথগামি করতে চায়। বাংলাদেশের অগ্রগতি ও এগিয়ে যাওয়া থামিয়ে দিতে চায়। তারা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য, শহীদ মিনার ও স্মৃতিসৌধ নিয়ে ঔদ্ধত্যপূর্ণ কথা বলেন। তাদের কথাবার্তা ও কর্মকান্ড বরদাশত করা হবে না। তথাকথিত ফতোয়াবাজদের শুধু প্রতিরোধ নয়, নির্মূল করা হবে।এটা আমাদের বিজয় দিবসের শপথ।’
নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী আজ বুধবার রাজধানীর মতিঝিলে বিআইডব্লিউটিএ ভবনে মহান বিজয় দিবস ২০২০ উদযাপন উপলক্ষে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
খালিদ মাহমুদচৌধুরী বলেন, জিয়া-এরশাদ মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুকে ধারণ করতে পারেনি বলে বাংলাদেশ এগিয়ে যেতে পারেনি। বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুকে ধারণ করে বলেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করার পরে জিয়া, এরশাদ, খালেদা জিয়ারা অনেক ভাবে চেষ্টা করেছে ইতিহাস পাল্টে দেওয়ার জন্য। কিন্তু তারা ব্যর্থ হয়েছে।
তিনি বলেন, বিএনপি মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দেশ পরিচালনা করেনি, তারা পাকিস্তানের ভাবধারায় দেশ পরিচালনা করেছে। তারা মুক্তিযুদ্ধের নায়কের জায়গায় খলনায়ককে বসানোর চেষ্টা করেছে। স্বাধীনতা বিরোধিদের রাজনীতি করার সুযোগ করে দিয়েছে। খালেদা জিয়া যুদ্ধাপরাধীদের হাতে পতাকা তুলে দিয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় আঘাত দিয়েছিল। ইতিহাসকে অন্য ধারায় পাল্টে দেওয়ার জন্য অনেক চেষ্টা করেছে কিন্তু পারে নাই।
খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাহসী ও দুরদর্শি নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। করোনা মহামারীতেও উন্নয়ন প্রকল্প বাধাগ্রস্থ হয়নি। পদ্মাসেতু এখন দৃশ্যমান; সকল ষড়যন্ত্র ও চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে প্রধানমন্ত্রী নিজস্ব অর্থে পদ্মা সেতু নির্মাণ করে দেশকে বিশ্বের কাছে মর্যাদার আসনে নিয়ে গেছে।
নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল এম শাহজাহান, চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল এস এম আবুল কালাম আজাদ, বাংলাদেশ স্থল বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান কে এম তারিকুল ইসলাম, নৌপরিবহন অধিদফতরের মহাপরিচালক কমডোর আবু জাফর মোঃ জালাল উদ্দিন, বিআইডব্লিউটিসি’র চেয়ারম্যান সৈয়দ মোঃ তাজুল ইসলাম এবং বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক।