ঢাকার বিদায়; মাশরাফির মরিয়া চেষ্টা বিফলে

Social Share

বঙ্গবন্ধু বিপিএল থেকে বিদায় নিল মাশরাফি বিন মুর্তজার নেতৃত্বাধীন ঢাকা প্লাটুন। এই মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে দলকে জেতাতে হাতে ১৪টি সেলাই নিয়ে মাঠে নেমেছিলেন মাশরাফি। ক্রিস গেইলের ক্যাচও নিয়েছেন এক হাতে! ৪ ওভার বল করে ৩৩ রানে উইকেটশূন্য ছিলেন।অধিনায়কের মরিয়া চেষ্টার পরেও জিততে পারেনি ব্যাটিংয়ে চরম ব্যর্থ ঢাকা প্লাটুন। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স ম্যাচ জিতে নিয়েছে ৭ উইকেটের বড় ব্যবধানে।

এলিমিনেটর ম্যাচে রীতিমতো হতাশ করেছেন ক্যারিবীয় দানব ক্রিস গেইল। ঢাকার দেওয়া ১৪৫ রানের মামুলি টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে জিয়াউর রহমানের সঙ্গে বেশ ভালোই শুরু করেছিলেন তিনি। উদ্বোধনী জুটিতে আসে ৪২ রান। এরপর ইমরুল কায়েসের সঙ্গে দ্বিতীয় উইকেটে গড়েন ৪৯ রানের জুটি। মাশরাফির এক হাতে নেওয়া অবিশ্বাস্য ক্যাচে গেইল আউট হলে ওই জুটির পতন হয়। কিন্তু তখন দ্য ইউনিভার্স বসের নামের পাশে ৪৯ বলে ৩৮ রান! স্ট্রাইক রেট ৭৭.৫৫! বাউন্ডারি মাত্র ১টি আর ওভার বাউন্ডারি ২টি। এ কোন গেইল?

চলতি আসরে দারুণ খেলে চলা ইমরুল কায়েস ২২ বলে ৩২ রানের ইনিংস উপহার দেন। শাদাব খানের বলে ইমরুল আউট হলে দলের হাল ধরেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ এবং ক্যারিবীয় তারকা কেসরিক ওয়ালটন। এই দুজনের অবিচ্ছিন্ন ৪৫ রানের জুটিতেই ১৪ বল হাতে রেখে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় চট্টগ্রাম। এখন তারা ১৫ তারিখ খেলবে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে। মাহমুদউল্লাহ ১৪ বলে ৪ ছক্কায় ৩৪* আর ওয়ালটন ১০ বলে ১২* রানে অপরাজিত থাকেন।

এর আগে মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে এলিমিনেটর ম্যাচে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৪৪ রান সংগ্রহ করে ঢাকা। এতে ৬৪ রানই করেছেন শাদাব খান। রাজধানীর টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয় ১৫ রানেই প্রথম উইকেট হারায় ঢাকা প্লাটুন। গত ম্যাচের মতো আজও ব্যর্থ দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবাল। তারকা পেসার রুবেল হোসেনের বলে বোল্ড হওয়ার আগে করেন ৩ রান! গত ম্যাচে বিধ্বংসী ব্যাটিং করার মুমিনুল হক করেন ৩১ বলে ৩১। তারপর শুরু হয় ব্যাটিং ধস। চার ব্যাটসম্যান ‘ডাক’ মারেন।

ঢাকার ৭ ব্যাটসম্যান দুই অংকে পৌঁছতে পারেননি। সবার বিপরীতে দাঁড়িয়ে মাথা ঠাণ্ডা করে ব্যাটিং করে যান পাকিস্তানের শাদাব খান। ৩৬ বলে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেওয়া শাদাবের ইনিংস শেষ হয় ৪১ বলে ৫ চার ৩ ছক্কায় ৬৪ রান করে। শেষের দিকে শ্রীলঙ্কার থিসারা পেরেরা ১৩ বে ২৫ রান করে আউট হন। এই তিন ব্যাটসম্যানের সৌজন্যেই নির্ধারিত ২০ ওভারে ঢাকার সংগ্রহ দাঁড়ায় ৮ উইকেটে ১৪৪ রান। রায়াদ এমরিট নিয়েছেন ৩ উইকেট, ২টি করে নিয়েছেন রুবেল-নাসুম।